কম্বোডিয়ায় পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

আগের সংবাদ

কমলা খোসার ৩ ফেসপ্যাক

পরের সংবাদ

প্রজ্ঞাপন পেলেই ঢাকা উত্তরে ভোট: ইসি সচিব

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৩, ২০১৭ , ৩:৩৮ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০১৭ , ৩:৩৮ অপরাহ্ণ

মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুর কারণে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে আবার ভোট হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করলেই মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করা হবে। আর সেদিন থেকে ৯০ দিনের মধ্যে হবে ভোট।

রবিবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইউএনডিপির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন নির্বাচন কমিশনের এই প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

২০১৫ সালের ১০ মে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন আনিসুল হক। সেই হিসাবে করপোরেশনের মেয়াদ আছে আরও আড়াই বছরের মতো। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মেয়র আনিসুল।

চার মাস আগে মেয়র অসুস্থ হওয়ার এক মাসের মধ্যে উত্তর সিটি করপোরেশনে প্যানেল মেয়র হিসেবে ২১ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার ওসমান গণিকে নিয়োগ দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। কিন্তু করপোরেশনের বাকি মেয়াদ প্যানেল মেয়র দিয়ে পার করার বিধান নেই।

নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ‘আসন শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। প্রজ্ঞাপনটি হাতে পেলে নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে।’

২০১৫ সালের নির্বাচন নির্দলীয়ভাবে হলেও এবার মেয়র পদে নির্বাচন দলীয় প্রতীকে হবে বলেও জানান হেলালুদ্দীন। বলেন, ‘স্থানীয় সরকারের সকল পর্যায়ের নির্বাচন এখন দলীয় প্রতীকে হয়। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনও নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের দলীয় প্রতীকে হবে।’

সাম্প্রতিক সময়ে নতুন ১৮ টি ওয়ার্ড সিটি করপোরেশনে যুক্ত হয়েছে। সেখানে এখনই কাউন্সিলর পদে নির্বাচন হবে কি না-এমন প্রশ্নে কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ‘এটা এখনই বলা যাচ্ছে না। কারণ বিষয়টি জটিল। ভোটার তালিকা সংযুক্ত করা হয়েছে। এখন সিডি নির্মাণের কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এটি হলে কমিশনে উপস্থাপন করা হবে। পরে কমিশন এবিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।’

এর আগে সকাল ১১টা থেকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার সঙ্গে বৈঠক করেন ইউএনডিপির তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল। এতে চার কমিশনার ও ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব উপস্থিত ছিলেন।

কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ‘নারী ভোটারদের কীভাবে আরও সচেতন করা যায়, নির্বাচন প্রক্রিয়াকে কীভাবে আরও আধুনিকায়ন করা যায় এসব বিষয়ে কারিগরি সহযোগিতার বিষয়ে এই আলোচনা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়