সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে সম্মেলনের আহ্বান বিএনএফের

আগের সংবাদ

সদরঘাটে মার্কেটে আগুন

পরের সংবাদ

জিয়াউর রহমান দেশে রাজাকার আমদানি ও পুনর্বাসনের কাজ করেছেন : ইনু

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৭, ২০১৭ , ৩:২৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৭, ২০১৭ , ৩:২৪ অপরাহ্ণ

জেনারেল জিয়াউর রহমান গণতন্ত্র নয় সামরিকতন্ত্রের প্রবক্তা। তিনি খুন ও খুনিদের হালাল করার কাজ করেছেন এবং দেশে রাজাকার আমদানি ও পুনর্বাসনের কাজ করেছেন। জিয়াউর রহমানের শাসনকাল আদালতের মাধ্যমে অবৈধ ঘোষিত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাকে সাংবিধানিক পদে থেকে ইতিহাস ও রাজনীতির চর্চা না করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে গত ১৫ অক্টোবর নির্বাচন ভবনে বিএনপির সঙ্গে সংলাপে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘জিয়াউর রহমান এ দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছিলেন।’

সিইসির এই বক্তব্যের বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সাংবিধানিক পদে অধিষ্ঠিত যে কোনো ব্যক্তি তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনারই হোক বা অন্য কেউ হোক, তিনি ইতিহাস ও রাজনীতির চর্চা করবেন না। নিরপেক্ষতা ক্ষুণ্ন হয় এমন কোনো বক্তব্য দেবেন না।
প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ইনু বলেন, ‘সংবিধানের এখতিয়ার অনুযায়ী সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিরা ভূমিকা রাখছেন। প্রধান বিচারপতি স্বেচ্ছায় ছুটিতে গেছেন, স্বেচ্ছায় ফিরবেন এবং দায়িত্ব নেবেন। এখানে সরকারের কিছু করার নেই, সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই, সরকারের কোনো পরামর্শ নেই।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। বেগম জিয়া গ্রেফতার হলে আগামী নির্বাচনে এর প্রভাবে পড়বে কি না জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘কোনো নেতা-নেত্রী গ্রেফতারের সঙ্গে নির্বাচনের কোনো সম্পর্ক নেই। কোনো দলের নেতা-নেত্রী যদি কোনো অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তবে পুলিশ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

তিনি বলেন, ‘সরকার নয়, আদালত পয়োয়ানা জারি করেছে, সেই পরোয়ানা বাস্তবায়ন করবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। কি পদ্ধতিতে করবে সেটা তাদের ব্যাপার।’

ভারতের একটি টেলিভিশন চ্যানেল প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রচার করছে। এ বিষয়টি তথ্য মন্ত্রণালয়ের নজরে এসেছে কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘নজরে এসেছে। ইউটিউব, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং বিভিন্ন দেশের টেলিভিশন চ্যানেলে বক্তব্য দিচ্ছে, এর মধ্যে কিছু উস্কানিমূলক বক্তব্য আছে। আমরা এগুলোর প্রতিকারের চেষ্টা করছি।’

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়