আষাঢ়ের মন ঝরে তুমুল প্রতাপে

মানিক বৈরাগী কে কার মন ছুঁয়েছিল সেদিন? না তুমি না আমি মনের জানালা ঠাস ঠাস খুলে যায় ‘এমনি ঘন ঘোর বরষায়’ টিনের চাল বস্তির শিশু কাকের বাসা বুঝে আষাঢ়ের একগুঁইয়ে প্রতাপের মর্মফল... বিস্তারিত

সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনের উজ্জ্বল নক্ষত্র

মোনায়েম সরকার বাংলাদেশে কামাল লোহানীকে চিনেন না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। কামাল লোহানী একজন মানুষই শুধু নন, তিনি একটি চেতনার নাম। দুঃসময়ে, রাষ্ট্রীয় দুর্যোগের কালে তিনি কখনোই ঘরে বসে থাকেননি। বলা... বিস্তারিত

কামাল লোহানী আমার অহংকার

সাগর লোহানী “জীবনে পথ চলতে লোহানীকে দেখেছি নির্মেদ শরীর থাবা দিয়ে সে ধেয়ে আগে চলে যায়। কেবলই মহেন্দ্র নিন্দিত কান্তির জন্যই তা হতে পেরেছে। শ্যামা নৃত্যনাট্যে সুন্দরী শ্রেষ্ঠা শ্যামা তো লোহানীকে অর্থাৎ... বিস্তারিত

না বলে আসা বর্ষণ

শর্মিষ্ঠা সরকার অলস বেলার প্রহর ভাঙে বৃষ্টির কোরাসে, ভালোবাসি বলেই সংশয়ের মেঘ সরিয়ে বৃষ্টির জলে নোনা জলের শোক ধুইয়ে নিই! দুখের দহনে এ যেন শান্তির প্রলেপ। শিশির ভেজা ঘাসের ওপর এলোমেলো পথে... বিস্তারিত

কামাল লোহানী জীবনালেখ্য : একজন নির্ভেজাল বাঙালি

১৯৫৫ সালের জুলাই মাস। রাজশাহী কারাগার থেকে মুক্তির পর কামাল লোহানী ফিরে এলেন পাবনায়। কিন্তু অভিভাবকদের সাথে তাঁর শুরু হলো রাজনীতি নিয়ে মতবিরোধ। অভিভাবকদের কথা ‘লেখাপড়া শেষে রাজনীতি করো, আপত্তি নেই’। কিন্তু... বিস্তারিত

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী >> বাংলা গদ্যের এক উৎকৃষ্ট শিল্পী : আহমদ কবির

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাংলা গদ্যের এক উৎকৃষ্ট শিল্পী। গদ্য রচয়িতা হিসেবে তাঁর সুনাম ছড়িয়ে পড়েছিল পঞ্চাশের দশকে। সেই থেকে তিনি অনবরত লিখে চলেছেন। এতটা সময় তাঁর কলম সক্রিয় থেকেছে এবং থাকবেও আরো... বিস্তারিত

ভূতকল্যাণ সমিতি:মুস্তাফিজ শফির এশটি ভিন্নধারার কথন

মূলধারার কবি ও সাংবাদিকতা জগতে একটি পিরিচিত নাম মুস্তাফিজ শফি। শফি নব্বই দশকের কবি ও কথাশিল্পী। তিনি ‘ভূতকল্যাণ সমিতি’র জন্য এবার আনন্দ আলো পুরস্কার পেয়েছেন। এটাই তার প্রথম পুরস্কার নয়; তার পুরস্কারের... বিস্তারিত

রুদ্রের সেই বিখ্যাত গান : ইসহাক খান

আশির দশকের শেষ দিকে তখনো প্রযুক্তি এতটা আগ্রাসী হয়নি। পরস্পরের যোগাযোগের বড় বাহন ছিল চিঠি বা টেলিগ্রাম। টেলিফোন ছিল বনেদি ব্যাপার। যাদের ঘরে টেলিফোন ছিল তাদের এলিট শ্রেণি মনে করা হতো। সেই... বিস্তারিত

পিপাসার্ত পাখি:শর্মি ভৌমিক

গ্রীষ্মের এক দুপুরে, খাঁ খাঁ রোদ্দুরের দাবদাহে আমার ছয় তলা বাসার রান্নাঘরে রান্না করছি আমি আর খনিজরূপ রাশি রাশি ঘর্মবিন্দু আমার শরীরের লোমক‚প ভেদ করে বিনা ক্লেশে প্রবাহিত হচ্ছে চুলের গোড়া থেকে... বিস্তারিত

আমার দাদা রুদ্র : হিমেল বরকত

কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ (১৯৫৬-১৯৯১)। আমাদের দশ ভাইবোনের মধ্যে সবার বড়। আমরা ডাকি ‘দাদা’ নামে। দাদার সঙ্গে আমার বয়সের পার্থক্য বিশ বছরেরও বেশি। আমার শৈশব-কৈশোর যখন মিঠেখালি গ্রামে ও মোংলায় কাটছে, দাদা... বিস্তারিত

তুমি অতঃপর আমি : আফরোজা হীরা

স্থির দণ্ডায়মান মধ্য দুপুরের সোনা রোদ্দুর ওগো, প্রিয়তম বন্ধু আমার। সহ¯্র মৃত্যুকে পেরিয়ে এসে- আমি তোমার নির্দিষ্ট সেই নদীতীর আর নীড় হতে চেয়েছিলাম। তোমার হাতে হাত রেখে- অনিরুদ্ধ অনাবিল শোভন জীবনে পদার্পণ... বিস্তারিত

সূর্য ওঠার আগে : রফিকুর রশীদ

হ্যাঁ এসেছি, আবার আসিনি। ও সব কথার বুজরুকি রাখো। নিজের রিফ্যুজি নাম ঘুচাতে পেরেছ? কী মুশকিল, ওপার থেকে এসেছি, আমরা রিফ্যুজি- এসব তো আমি মোটেই অস্বীকার করছি নে! তাহলে এসেছি- আসিনি, এসব... বিস্তারিত

রুদ্র, আকাশের ঠিকানায় চিঠি দিও : সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল

রুদ্র পরপারে আর আমি পরবাসে। রুদ্র কাছের মানুষ এবং দূরের মানুষ। রুদ্রকে হারিয়েছি। হারিয়েছি রুদ্রের চিঠি, হারিয়েছি রুদ্রের সাথে ছবি। রুদ্র মারা যাবার পর অক্টোবর ১৯৯১ সালে আনওয়ার আহমদ তাঁর কিছুধ্বনি একটি... বিস্তারিত

ভালো আছি, ভালো থেকো : রুদ্র সাহাদাৎ

এখনো বাতাসে লাশের গন্ধ পাই অভিনয়ে হাসে কিছু কিছু মানুষ মুখোশের অন্তরালে মানুষের মানচিত্রে আজ মানুষ নেই অমানুষের ছায়ারা হাঁটে আমরাও ফিরে পেতে চাই স্বর্ণগ্রাম কিন্তু বিষাক্ত ছোবল চাই সোনালী শিশির দ্যাখতে,... বিস্তারিত

আবৃত্তিকারের রুদ্রঘর : রবিশঙ্কর মৈত্রী

যতœলগ্ন উর্বর প্রেমময় মাটি জল হাওয়া আলো না পেলে যেমন ফুল ফোটে না, বিশ্বাস আস্থা দ্রোহ ও প্রেমসিক্ত শব্দাবলি না পেলেও আবৃত্তিকারের কণ্ঠ সজীব হয় না। উর্বর মাটিতে পাখির ঠোঁট থেকে নিক্ষিপ্ত... বিস্তারিত

রুদ্র একটি গল্পের নাম : নীতুল জান্নাত মায়া

রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ, বাংলা সাহিত্যের অন্যতম একটি নাম। ১৯৫৬ সালের ১৬ অক্টোবর বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন এ কবি। তাঁর মূল বাড়ি হচ্ছে বাগেরহাট জেলার মোংলা উপজেলার মিঠেখালি গ্রামে। তাই কবির স্মরণে মিঠেখালিতে রয়েছে... বিস্তারিত

ভালো থেকো আকাশের ঠিকানায় : প্রত্যয় হামিদ

ভালো আছি হয়তো; ভালো থেকো তুমিও। যে চিঠি পাঠিয়েছিলাম আকাশের ঠিকানায় তার উত্তর কেন পাইনি এখনও পায়রার ঠোঁটে এখনও খুঁজি আশ্বাসের খাম এখনও মেঘের ভিতর খুঁজি বজ্রপাতের মতোন রুদ্র কণ্ঠ সত্যের। খুব... বিস্তারিত

রুদ্রকে তসলিমার:চিঠি

প্রিয় রুদ্র, প্রযতেœ, আকাশ তুমি আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখতে বলেছিলে। তুমি কি এখন আকাশ জুড়ে থাকো? তুমি আকাশে উড়ে বেড়াও? তুলোর মতো, পাখির মতো? তুমি এই জগৎ সংসার ছেড়ে আকাশে চলে গেছো।... বিস্তারিত

বাবার চোখে হাজার তারা:রহীম শাহ

সবাই বলেন আমার বাবা চলে গেছেন অনেক দূরে, কেউ জানে না প্রতিদিনই তিনি আসেন ঘুরে-ঘুরে। বাবার বুকে বিশাল বাড়ি সেই বাড়িতে আমি থাকি, সেই বাড়িতে বসে-বসে আমি মায়ের ছবি আঁকি। এই ছবিটা... বিস্তারিত

পীড়া ও পিরিতি

গোলাম কিবরিয়া পিনু পীড়া ও পিরিতি মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ, তারপরও মানুষ নিজেকে ক্ষমতার চূড়ায় নিয়ে গিয়ে ভাবে মহাশক্তিশালী, জানে না পতনের পতঙ্গ-সমান মানুষও, পুড়ে যেতে পারে! উত্থান ও লুপ্ত হওয়াও মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ, মানুষ... বিস্তারিত

Bhorerkagoj