হাটবাজারে ক্রেতা সংকট : কাউনিয়ায় লাউ নিয়ে বিপাকে চাষিরা

সোমবার, ২৭ এপ্রিল ২০২০

গৌতম সরকার, কাউনিয়া (রংপুর) থেকে : মহামারি করোনাতে রংপুর জেলা লকডাউন হওয়ায় কাউনিয়ার অর্ধশতাধিক লাউচাষি ক্রেতার অভাবে বিপাকে পড়েছেন। ক্রেতা না থাকায় চাষিরা লাউ গরুকে খাওয়াচ্ছেন।

উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের চাষি আ. সামাদ জানান, ২০ বিঘা জমির মৎস্য খামারের পুকুরের পাড়ে মাচা দিয়ে সহ¯্রাধিক লাউ চারা রোপণ করেছেন। এতে জাংলা-মাচা, বীজ, সার, পরিচর্যায় খরচ হয় প্রায় ৫০ হাজার টাকা। মৌসুমের শুরুতে এবং করোনা পরিস্থিতির আগে লাউ বিক্রি করে ঘরে তুলে ২০ হাজার টাকা। এখন আসল তুলতে দরকার আরো ৩০ হাজার টাকা। একই দৃশ্য দেখা যায় টেপামধুপুর ইউনিয়নের নিজদর্পা গ্রামের আ. জলিলের লাউবাগানে গিয়েও। তিনি জানান, এ মৌসুমে অনেক টাকা ক্ষতি গুনতে হবে। খোপাতি গ্রামের আ. হাকিম জানান, লাউয়ের দাম না পাওয়ায় সেসব গাছ তুলে ফেলেছেন। করোনা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতির দিকে যাওয়ায় পরিবহন সংকট। হোটেল-রেস্তোরাঁ ও হাটবাজার বন্ধ থাকায় চাহিদা কমে গেছে। চাষিরা সরকারিভাবে লাউ ক্রয় করে ত্রাণ হিসেবে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে লাউচাষিরা ক্ষতির সম্মুখীন। উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে ইতোমধ্যে ২ জন চাষির লাউ ক্রয় করে ত্রাণের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু এলাকায় শত শত চাষি বিভিন্ন সবজি চাষ করেছেন। তারা তাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করতে পারছেন না। কৃষকদের সহযোগিতা না করলে সবজি চাষ থেকে কৃষক মুখ ফিরিয়ে নিলে অনেক বড় ক্ষতির মুখে পড়বে দেশ। আমার চেষ্টা করছি বিভিন্ন সবজি সরকারিভাবে কিনে ত্রাণের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করার।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj