ভোলায় লকডাউন মানাতে প্রশাসন গলদঘর্ম : নেই করোনা শনাক্তের ল্যাব

রবিবার, ২৬ এপ্রিল ২০২০

এইচ এম নাহিদ, ভোলা থেকে : ভোলা জেলায় এখনো করোনার রোগী শনাক্ত হননি। যদিও এখানে নেই করোনা শনাক্তের পরীক্ষা কেন্দ্র। এ রোগের উপসর্গ নিয়ে প্রায়ই মারা যাচ্ছেন মানুষ। প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতিদিনই করা হচ্ছে সচেতনতামূলক প্রচারণা। এদিকে নিত্যপণ্য ক্রয় করার জন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিলেও বাস্তবে তার উল্টো চিত্র দেখা যায়।

লকডাউন উপেক্ষা করে জেলা/উপজেলা শহর ও গ্রামগঞ্জের হাটবাজারগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। এখনো নৌপথ ব্যবহার করে ভোলায় ঢুকছেন ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের মানুষ।

এ নিয়ে সচেতন মহলের আতঙ্কের শেষ নেই। এমনিতেই দ্বীপ জেলা ভোলা নদীবেষ্টিত হওয়ায় সারাদেশ থেকে এ করকম বিচ্ছিন্ন এই অঞ্চলটি।

কর্তব্যরত ডাক্তাররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনায় উপসর্গ রোগীর নমুনা সংগ্রহ করছেন। তাদের ভেতর এক ধরনের ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাদের দাবি প্রশাসনের কাছে, অচিরেই যেন ভোলার এই জনসমাগম বন্ধ করা হয়। তা না হলে এই অঞ্চলের চরম দুর্ভোগ নেমে আসতে পারে বলে মনে করছেন তারা। ভোলার সিভিল সার্জন রতন কুমার ডালি বলেন, আমরা যতটুকু জানতে পেরেছি, প্রধানমন্ত্রী ভোলার জন্য একটি পিসি ল্যাব অনুমোদন করেছেন। আশা করছি খুব দ্রুতই আমরা সেটা পাব। আর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে এখানের মানুষ খুব কমই মানছেন। যদি এটা নিয়ন্ত্রণ করা না যায়, তাহলে আমাদের জন্য খারাপ দিনের অপেক্ষা করতে হবে।

জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক বলেন, আমাদের দেশের মানুষ স্বল্প আয়ের মানুষ। কাজ-কর্ম ছাড়া দীর্ঘদিন বাসায় থাকাটাও কঠিন, অন্যদিকে বাধ্যতামূলক ঘরে থাকতেই হবে। এই দুটোর মাঝখানে থেকেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমরা এখনো কোভিড-১৯ করোনা রোগী থেকে মুক্ত আছি এবং জেলাকে করোনামুক্ত রাখার জন্য কাজ করছি।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj