নিউইয়র্কে দুই বিড়ালের কোভিড-১৯ পজেটিভ

শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল ২০২০

কাগজ ডেস্ক : প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রে দুটি পোষা বিড়ালের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। দেশটির নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের পৃথক এলাকার এ দুটি বিড়াল মৃদু শ্বাসকষ্টে ভুগছে। তবে প্রাণী দুটি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে যাবে বলে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) জানায়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, পোষা প্রাণী থেকে ভাইরাসটির মানুষের মাঝে ছড়ানোর কোনো প্রমাণ নেই বলে জানায় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষগুলো। বরং যে বাড়িতে বা যে এলাকায় তারা ছিল সেখানকার মানুষের মাধ্যমেই প্রাণী দুটি আক্রান্ত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। প্রতিদিনের করোনা ভাইরাস ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের পরিচালক ড. অ্যান্থনি ফাউচি বলেন, প্রাণী, পোষা প্রাণীও আক্রান্ত হতে পারে। তবে পোষা প্রাণী থেকে মানুষের মধ্যে ভাইরাস ছড়ানোর কোনো প্রমাণ নেই। বিশ্বজুড়ে পোষা প্রাণীদের কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার খুব বেশি ঘটনা নেই। আমেরিকান ভেটেরিনারি মেডিকেল এসোসিয়েশনের তথ্য অনুযায়ী, পরীক্ষায় হংকংয়ের একটি বিড়ালের কোভিড-১৯ পজেটিভ হলেও কোনো লক্ষণ প্রকাশ পায়নি। আর বেলজিয়ামের একটি বিড়াল অসুস্থ হওয়ার নয় দিন পর সুস্থ হয়েছিল। নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানায় পাঁচটি বাঘ ও তিনটি সিংহের কোভিড-১৯ পজেটিভ পাওয়া গিয়েছিল। তবে একটি বাঘের কোনো কাশির লক্ষণ প্রকাশ পায়নি বলে ভাষ্য চিড়িয়াখানার তত্ত্বাবধানে থাকা ওয়াইল্ডলাইফ কনসারভেইশন সোসাইটির (ডব্লিউসিএস)।

ডব্লিউসিএস জানায়, আমাদের পশুগুলো একজন কর্মীর মধ্যমে সংক্রমিত হয়েছিল, ?যিনি ভাইরাসটির বাহক ছিলেন অথবা যার লক্ষণ পরে প্রকাশ পায়। আটটি পশুই ভালো আছে। তাদের আচরণ স্বাভাবিক, ভালোভাবেই খাওয়া-দাওয়া করছে। তাদের কাশি অনেক কমে গেছে। চিড়িয়াখানাটির কোনো চিতা বাঘ, চিতা, পুমা বা অন্যান্য প্রাণীর মধ্যে কোনো রোগ লক্ষণ দেখা যায়নি বলে জানান তারা।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj