উহানের ল্যাবে হাজার হাজার ভয়ঙ্কর ভাইরাস!

সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০

কাগজ ডেস্ক : উহানের নামটার সঙ্গে অনেকেই হয়তো পরিচিত ছিলেন না। কিন্তু মহামারি করোনা ভাইরাসের উৎস হিসেবে এখন এই শহরের নাম প্রায় সবারই জানা। এ মুহূর্তে উহানের আরেকটি আলোচিত বিষয় হচ্ছে একটি ল্যাবরেটরি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, উহানের ওই ল্যাবরেটরি থেকেই মূলত ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। উহানের মাছের বাজারের সঙ্গে ভাইরাসের কোনো সম্পর্ক নেই বলেই মনে করছে বহু বিশেষজ্ঞ। রীতিমতো এ বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে আমেরিকা।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও জানিয়েছেন, কীভাবে গোটা বিশ্বে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ল তার নিখুঁত তদন্ত করবে তারা। কী এই ‘ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি’ : মূলত চীনের ভাইরাস কালচার কালেকশনের কেন্দ্র এই গবেষণাগার। বলা যায় এটাই এশিয়ার বৃহত্তম ভাইরাস ব্যাংক। যেখানে ১৫ হাজার ধরনের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। ইবোলার মতো ভাইরাস নিয়েও গবেষণা করে এরা। যেসব ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াতে পারে, সেরকম ভাইরাসও রয়েছে এই গবেষণাগারে। ৪২ মিলিয়ন ডলারে তৈরি করা হয় এই ল্যাবরেটরি। ২০১৫ সালে ল্যাব তৈরির কাজ শেষ হয়। ২০১৮ থেকে এখানে গবেষণার কাজ শুরু হয়। এখানে অবশ্য একটি ল্যাবরেটরি রয়েছে, যা ২০১২ সাল থেকে কাজ শুরু করেছে।

এই গবেষণাগার অবস্থিত জঙ্গলে ঘেরা একটি পাহাড়ের তলায়। পাশেই রয়েছে জলাশয়।

লোকালয় থেকে দূরে এই গবেষণাগার ৩২০০০ স্কোয়্যার ফুট জায়গাজুড়ে রয়েছে। বিল্ডিংয়ের বাইরে একটি সতর্কবার্তা লেখা রয়েছে। সেখানে লেখা আছে, ‘ঝঃৎড়হম চৎবাবহঃরড়হ ধহফ ঈড়হঃৎড়ষ, উড়হ’ঃ চধহরপ, খরংঃবহ ঃড় ঙভভরপরধষ অহহড়ঁহপবসবহঃং, ইবষরবাব রহ ঝপরবহপব, উড়হ’ঃ ঝঢ়ৎবধফ জঁসড়ঁৎং’. করোনা ভাইরাস উহানের ল্যাব থেকেই ছড়িয়েছিল কিনা গত শুক্রবার সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের উত্তরে ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, আমরা নজর রেখেছি, আরো অনেকেই এর দিকে নজর রেখেছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj