ক্রীড়া তারকাদের খারাপ সময়গুলো…

মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০

একজন সাধারণ মানুষ যেমন ভালো ও খারাপ সময়ের মধ্যে যান। তেমনই একজন ক্রীড়া তারকাও ভালো ও খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যায়। তার জীবনে আসে দুঃখ বেদনা। চলুন আজ জেনে নেই বিশ্বের ক্রীড়া তারকাদের জীবনের সবচেয়ে খারাপ মুহূর্ত কোনটি। যা তারা নিজেরাই বিভিন্ন সময়ে জানিয়েছেন।

বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ক্রিকেটে অনেক অনেক সাফল্য পেয়েছেন। কিন্তু এখনো একটি বিষয় তাকে ভীষণ পীড়া দেয়। আর সেটি হলো ভারতের বিপক্ষে ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মাত্র ১ রানের হার। কয়েকদিন আগে একথাটি জানিয়েছিলেন তিনি।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি বিশ্বের সবচেয়ে সেরা ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম। তবে এত সাফল্যের মাঝেও তিনি এখনো কষ্ট পান ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের কথা ভাবলে। কারণ তার বিশ্বাস বিশ্বকাপ জয়ের দাবিদার ছিল ভারত। কিন্তু মাত্র একটি ম্যাচে হারার কারণে তাদের স্বপ্ন ভেঙে যায়।

ফুটবল তারকা লিওনেল মেসি জানিয়েছেন তার সবচেয়ে বাজে মুহূর্ত কেটেছে ২০১৩-১৪ মৌসুমে। সে সময় ট্যাক্স সংক্রান্ত ঝামেলা পোহাতে হয় তাকে। সঙ্গে বেশ কয়েক মাস ইনজুরিতেও ভোগেন তিনি। ফুটবলের আরেক মহাতারকা রোনালদোর সবচেয়ে বাজে মুহূর্ত হলো ২০১৬ ইউরোর ফাইনাল। সেই ফাইনালে হাঁটুর ইনজুরির কারণে তাকে মাঠ থেকে উঠে যেতে হয়েছিল। যা তাকে ভীষণ পীড়া দিয়েছিল। ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন তার খেলোয়াড়ি জীবনে সবচেয়ে বাজে মুহূর্ত হলো ২০১৪ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পাওয়া আঘাত। কোয়ার্টার ফাইনালের ওই ম্যাচটিতে পিঠের ইনজুরিতে পড়েন তিনি। নেইমার জানান ওই ইনজুরির কারণে তিনি ঠিকমতো হাঁটতে পারতেন না। এমনকি তার দিনগুলো কাটতো তার বাবা মায়ের চোখে পানি দেখে।

টেনিস কিংবদন্তি রজার ফেদেরার একবার জানিয়েছিলেন তার জীবনে সবচেয়ে বাজে সময় হলো ২০০৩ সাল। সে বছর তিনটি গ্র্যান্ড¯øামেরই প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়েছিলেন তিনি। কি কারণে এমন হয়েছিল তা তিনি এখনো বুঝে উঠতে পারেন না।

উরুগুইয়ান ফুটবলার লুইস সুয়ারেজ ২০১৪ বিশ্বকাপে ইতালির জর্জিওর কাঁধে কামড় দিয়েছিলেন। সুয়ারেজ জানিয়েছেন এটি তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে পীড়াদায়ক মুহূর্ত। কারণ এই কাণ্ডের পর তিনি হিরো থেকে ভিলেন হয়ে গিয়েছিলেন। এমনকি তার পরিবারের লোকরাও খুব কষ্ট পেয়েছিল।

:: খেলা ডেস্ক

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj