স্টেডিয়াম পরিচিতি : ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডস

শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড ইংল্যান্ডের লন্ডন শহরের একটি ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ১৮১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় স্টেডিয়ামটি। স্টেডিয়ামটি প্রতিষ্ঠা করেন ক্রিকেটার থমাস লর্ড। তার নাম অনুসারেই এটিকে লডর্স ক্রিকেট গ্রাউন্ড নামে ডাকা হয়। লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড পৃথিবীর সবচয়ে প্রাচীন ক্রিকেট স্টেডিয়াম। বর্তমানে এটির বয়স ২০৬ বছর। তাই এই লর্ডস স্টেডিয়ামকে হোম অব ক্রিকেট বা ক্রিকেটের তীর্থভূমি হিসেবে ডাকা হয়। স্টেডিয়ামটি প্রায় ৩০ হাজার দর্শক একসঙ্গে বসে খেলা দেখতে পারেন। ২০১৪ সালে ২০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিশ্ব একাদশ ও এমসিসি একাদশের মধ্যে ৫০ ওভারের একটি প্রীতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। ওই খেলাটিতে এমসিসি একাদশকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন শচিন টেন্ডুলকার। আর বিশ্ব একাদশকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন শেন ওয়ার্ন।

লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড ক্রিকেট ছাড়াও বেসবল, হকি ও অলিম্পিক আয়োজন করেছে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় কানাডার বিধবা ও এতিম শিশুদের জন্য অর্থ সাহায্যের জন্য একটি বেসবল ম্যাচ আয়োজন করেছিল। অন্যদিকে ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকের আরচারি ইভেন্ট হয়েছিল এখানে। এছাড়া ১৯৬৭ সালে পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে হকি ম্যাচটিও হয়েছিল এখানে। অন্যদিকে ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডস পাঁচটি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ আয়োজন করেছে।

বর্তমানে লর্ডস ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি যেখানে রয়েছে এটির লর্ডসের তিন নাম্বার মাঠ। লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডের প্রতিষ্ঠাতা লর্ড সর্বপ্রথম ১৭৮৭ সালে প্রথম মাঠটি প্রতিষ্ঠা করেন। কিন্তু ঋণসংক্রান্ত কারণে তাকে মাঠটি ছেড়ে দিতে হয়। বর্তমানে প্রথম স্টেডিয়ামটির জায়গায় রয়েছে ডরসেট স্কোয়ার। এরপর তিনি তার দ্বিতীয় গ্রাউন্ডটি তৈরি করেন ১৮১১ সালে। কিন্তু মাত্র ৩ বছর বাদেই এই স্টেডিয়ামটির জায়গা ছেড়ে দিতে হয় তাকে। কারণ এই দ্বিতীয় স্টেডিয়ামটি যেখানে তৈরি করা হয়েছিল সেখানে খাল নির্মাণ করার উদ্যোগ নেয় সরকার। এরপর ১৮১৪ সালে তিনি তৃতীয় মাঠটিতে চলে আসেন। এরপর থেকে এখানেই রয়েছে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড।

লডর্স ক্রিকেট গ্রাউন্ড দর্শক ধারণ ক্ষমতার দিক দিয়ে অন্য ক্রিকেট স্টেডিয়ামগুলোর তুলনায় কম হলেও এর নির্মাণশৈলী সবাইকে আকর্ষণ করে। এই স্টেডিয়ামটির প্রেস বক্স যার মধ্যে অন্যতম। পৃথিবীর প্রথম শুধুমাত্র অ্যালুমিনিয়ান দিয়ে তৈরি কোনো কাঠামো এটি। ১৯৯৯ সালে এটি প্রতিষ্ঠার পর ব্রিটেনের সেরা আর্কিটেকচার পুরস্কার জয় করে। অন্যদিকে ২০০৭ সালে এখানে বসানো হয় ফ্লাডলাইট।

বিশ শতকের শেষের দিকে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ব্যাপক সংস্কারকার্য চালানো হয়। এর ফলে অনেক পুরনো কাঠামো ভেঙে নতুন কাঠামো তৈরি করা হয়। কিন্তু এই সংস্কারের মধ্যেও এখনো বেঁচে রয়েছে প্যাভিলিয়ন। ১৮৮৯-৯০ সালের মধ্যে এটি তৈরি করা হয়। বিশাল লম্বা এই রুমটি লর্ডসের আভিজাত্যের প্রতীকও বটে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj