এগিয়ে এলেন ফেদেরার

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

খেলা ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের আক্রমণে পুরো বিশ্বই কোণঠাসা। কোভিড-১৯ ভাইরাস মহামারি বিশ্বজুড়ে এক অর্থনৈতিক মহামন্দার আশঙ্কা জাগিয়ে তুলেছে। নিম্ন আয়ের মানুষরা এর শিকার হতে চলেছে। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বের ধনী ক্রীড়াবিদদের এগিয়ে আসা উচিত। জীবন ভর অনেক টাকাই তো রোজগার করেছেন তারা। সেই আয় থেকে সামান্য কিছু দান করলে মানুষের একটু উপকার হয়। ক্রীড়াবিদরা এগিয়ে এসেছেনও। মেসি, রোনালদো থেকে শুরু করে বাংলাদেশের মাশরাফি, মুশফিক, তামিমরাও মহানুভবতার পরিচয় দিয়ে অর্থ দান করেছেন। এগিয়ে এলেন টেনিসশ্রেষ্ঠ রজার ফেদেরারও।

পুরো বিশ্বের মতো সুইজারল্যান্ডেও করোনা পরিস্থিতি ভালো নয়। চার সপ্তাহ আগেই জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার। নর্দান ইতালির সঙ্গে সীমান্ত থাকায় বড় ধরনের ঝুঁকি আছে সুইজারল্যান্ডের।

এমতাবস্থায় দেশের অরক্ষিত পরিবারগুলোর জন্য এক মিলিয়ন সুইস ফ্রাঙ্ক দান করেছেন ফেদেরার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকা

ইনস্টাগ্রামে এক বার্তায় ফেদেরার লিখেছেন, এটা সবার জন্যই চ্যালেঞ্জিং এক সময়। কেউই এর বাইরে নন। মিরকা (ফেদেরারের স্ত্রী) এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সুইজারল্যান্ডের সবচেয়ে অরক্ষিত পরিবারগুলোকে এক মিলিয়ন সুইস ফ্রাঙ্ক দান করার।’

ফেদেরার আশা করছেন, তাদের দেখে আরো অনেকেই এগিয়ে আসবেন। সুইস টেনিস কিংবদন্তি লিখেছেন, আমাদের এই অংশীদারিত্ব কেবল সূচনা। আমরা আশা করছি, অন্যরাও অসহায় পরিবারগুলোকে সাহায্য করবেন। সবাই মিলে আমরা এই বিপর্যয় সামাল দিতে পারব। সুস্থ থাকুন।

হাঁটুর চোটে পড়ে গত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালটা খেলেছেন অস্বস্থির সঙ্গে, হেরে গেছেন নোভাক জোকোভিচের কাছে। এরপর ফেব্রুয়ারিতে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। প্রায় সুস্থ হয়ে ওঠার পথে ফেদেরার। আগেই জানিয়েছিলেন, ফ্রেঞ্চ ওপেন খেলবেন না। মে মাসে নির্ধারিত ফ্রেঞ্চ ওপেন এমনিতেও হচ্ছে না। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ওটা পিছিয়ে চলে গেছে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে। খেলার কথা ছিল তার প্রিয় উইম্বলডনে, যেটি শুরু হওয়ার কথা ২৯ জুন।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj