জামালপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত : বিড়ি শ্রমিকদের বাড়িতে ফেরত, কারখানার কর্মচারীকে জরিমানা

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক, জামালপুর : জেলায় একটি বিড়ি কারখানার নারী ও পুরুষ শ্রমিকদের বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ছুটি না দিয়ে শ্রমিকদের কাজ করানোর দায়ে কারখানাটির এক কর্মচারীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে শহরের বজ্রাপুরে এ অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিম আকাশ কুমার কুণ্ডু।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শহরের বজ্রাপুরের ওই বিড়ির কারখানায় শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে- এমন তথ্যের ভিত্তিতে নির্বাহী হাকিম আকাশ কুমার কুণ্ডু বিকালে ওই কারখানায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের দল ওই কারখানায় ৭০ জন নারী-পুরুষ শ্রমিককে বিড়ি তৈরির কাজ করতে দেখেন। এ ব্যাপারে কারখানাটির কর্মচারী মো. মনির হোসেনের বিরুদ্ধে ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারায় বর্ণিত অবহেলিত কার্যধারা জীবন বিপন্নকারী রোগের সংক্রমণ বিস্তার লাভ করার আশঙ্কা থাকার অভিযোগ আনা হয়। দোষ স্বীকার করায় কারখানার কর্মচারী মো. মনির হোসেনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক। পরে জরিমানার টাকা পরিশোধ করে ছাড়া পান ওই কর্মচারী। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান সরকারি আদেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কারখানাটির সব শ্রমিক-কর্মচারীকে যার যার বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিলে শ্রমিক-কর্মচারীরা সবাই কারখানা ত্যাগ করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী হাকিম আকাশ কুমার কুণ্ডু ওই কারখানায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে একজনকে জরিমানা ও শ্রমিক-কর্মচারীদের বাড়িতে অবস্থানের নির্দেশ দেয়ার বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj