ঢাকা ওয়াসা এমডি : নিরবচ্ছিন্ন পানি সেবায় সমস্যা হবে না

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

গতকাল ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলেও ঢাকা ওয়াসা অত্যাবশ্যকীয় সেবা-মূলক প্রতিষ্ঠান বিধায় সেবা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। নগরবাসীর নিরবচ্ছিন্ন পানি ও পয়ঃসেবাকে সমুন্নত রাখার জন্য ঢাকা ওয়াসার বিভিন্ন বিভাগ তাদের কাজ চালিয়ে যাবে। করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘন ঘন হাত ধুলে পানি ব্যবস্থাপনায় কোনো সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান। গত ২৫ মার্চ রাতে করোনা পরিস্থিতিতে ঢাকা ওয়াসার প্রস্তুতি নিয়ে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে গ্রাহকদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন প্রকৌশলী তাকসীম এ খান। তিনি বলেন, ঢাকা ওয়াসার কিছুসংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সাধারণ ছুটির সময় সেলফ কোয়ারেন্টাইন হিসেবে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করবেন। তবে প্রয়োজনে তাদের ডাকতে পারব। ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরো বলেন, ঢাকা ওয়াসার ৪টা ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট সম্পূর্ণরূপে চালু থাকবে। পাম্প স্টেশন যেগুলো ভূগর্ভস্থ পানি নির্গমণ করে সেগুলো চালু থাকবে। ওয়াসার গ্রাকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমি আশ্বস্ত করতে পারি পানি ব্যবস্থাপনায় কোনো বিঘ্ন ঘটবে না। তবে আপনাদের প্রত্যেকের প্রতি অনুরোধ থাকবে পানি ব্যবহারে কিছুটা মিতব্যয়ী ও সাশ্রয়ী হবেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে যে নির্দেশনা ঘন ঘন হাত ধোয়া, সাবান দিয়ে হাত ধোয়া; আশা করি সবাই যা যা করণীয় তা করবেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ঢাকা ওয়াসার পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রকৌশলী তাসকীম এ খান বলেন, কারওয়ান বাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় সাধারণ জনগণের হাত ধোয়ার সুবিধা হয় সে জন্য কিছু পানি ও সাবানের ব্যবস্থা করেছি। আমাদের ল্যাবরেটরিতে কিছু স্যানিটাইজার তৈরি করেছি, সেই স্যানিটাইজার আমাদের নিজেদের ব্যবহারের জন্য এবং অন্যদের ব্যবহারের জন্য বিনামূল্যে সরবরাহ করেছি। ঢাকা ওয়াসার সমস্ত কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা এই সময় কাজ করবেন তাদের প্রত্যেকে সরকারের নির্দেশিত সামাজিক দূরত্ব মেনে চলবেন এবং প্রত্যেকে মাস্ক ব্যবহার করবেন।

এছাড়া আসন্ন শুষ্ক মৌসুমেও পানির কোনো সংকট হবে না বলে আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, আপনারা জানেন শুষ্ক মৌসুম এসে যাচ্ছে। পানি ব্যবস্থাপনায় আমরাও প্রস্তুতি নিয়েছি। সব মিলিয়ে আমাদের সামগ্রিকভাবে পানি ব্যবস্থাপনা একইরকম থাকবে। কোনো সমস্যা হবে না। ঢাকা ওয়াসার পানি ব্যবস্থাপনায় যে কোনো অভিযোগ ফোন করুন ‘১৬১৬২’ হটলাইন নম্বরে, আমরা আপনাদের সমস্যার সমাধান দেব। বিজ্ঞপ্তি।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj