রকমারি : আইস বোটিং বা বরফে নৌকা চালানো ক্রীড়া

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

স্ক্যান্ডেনাভিয়ার দেশগুলোতে যথা- নরওয়ে, সুইডেন, ডেনমার্ক ও ফিনল্যান্ডে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় আইস বোটিং জনপ্রিয় একটি ক্রীড়া। বরফের এটি। সম্ভবত হল্যান্ডবাসীদের মধ্যে এই ক্রীড়া প্রথম প্রচলিত হয়। ১৭৬৮ সালে অঙ্কিত একটি রঙিন চিত্রাঙ্কনে দেখা যায় একটি সচরাচর দৃষ্ট হল্যান্ড দেশীয় পাল, মাশুল, দরিড়দড়া দিয়ে সজ্জিত পাল তোলা নৌকা। তার কাঠামোর নিচে নৌকার অগ্রভাগের কাছে রয়েছে আড়াআড়িভাবে স্থাপিত কাঠের তক্তা, দুইপ্রান্তে দুটি রানার আছে এবং নৌকার হালের নিচে নৌকার পশ্চাৎভাগে রয়েছে একটি ধারালো লোহার জুতা।

আইস বোট হলো একটি সংকীর্ণ, তীক্ষè অগ্রভাগযুক্ত নৌকা যা জলের পরিবর্তে বরফে ভেসে চলে। বরফে তা চলতে পারে কারণে তা রানারের ওপর স্থাপিত- সাধারণত তিনটি। রানারগুলো দেখতে ছোটখাটো স্কির মতো। তার পালগুলো সাধারণত খুব বড়। এই পালগুলো বাতাসের ওপর নির্ভর করতে এবং এগিয়ে যেতে বরফের নৌকাকে সাহায্য করে।

বরফের নৌকা বাতাসের গতির চেয়ে অনেকগুণ বেশি গতিতে চলতে পারে। যে বাতাস তাকে গতিদান করে সেই বাতাসকে অতিক্রম করে চলে- বাতাসের জোরে চলে না। প্রতি ঘণ্টায় ১৪০ মাইলের বেশি গতিতে সেটা চলতে পারে।

ঊনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগ থেকে এই ক্রীড়ার জনপ্রিয়তা বেড়ে যায়। ১৯০০ সালের মধ্যে হাডসন নদীর আইস ইয়াচ ক্লাবের ৫০টি বরফের নৌকা ছিল তার মধ্যে ৬টি খুব বৃহদাকার- যার মধ্যে ছির ৬০০ বর্গফিটের পাল। দ্বিতীয় বিশ^যুদ্ধের সময়কাল মধ্যে ইউরোপিয়ান আইস ইয়াচিং ইউনিয়নের পরিচালনায় ইউরোপে আইস বোটিং খুবই সক্রিয়তা লাভ করে। ইউনিয়নের সদস্যদের মধ্যে ছিল সুইডেন, লাটভিয়া, ইস্তোনিয়া, জার্মানি এবং অস্ট্রিয়া। প্রতি বছর বিভিন্ন বিভাগে প্রতিযোগিতা হয় এবং একটি হয় ১৫ বর্গমিটার এলাকার শ্রেণিতে। সবই প্রায় এক পালের নৌকা। অবশ্য দ্বিতীয় বিশ^যুদ্ধের পর এই ক্রীড়াকে পুনরুজ্জীবিত করতে কিছু সময় লাগে। ৭০-এর দশকের মধ্যে মার্কিন যক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং ইউরোপে ১৫০০ নৌকা রেজিস্টারিকৃত হয়।

গ্রন্থনা : ইমরুল ইউসুফ

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj