করোনা মোকাবিলায় তৎপর ওয়ালটন

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ব্যাপক কার্যক্রম হাতে নিয়েছে দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্র্যান্ড ওয়ালটন। কর্মীদের সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে তারা। পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনের মাধ্যমে স্বাস্থ্যকর্মীদের ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম (পারসোনাল প্রোটেকটিভ ইক্যুইপমেন্ট) দিচ্ছে ওয়ালটন। দরিদ্রদের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছে। একই সঙ্গে প্রায় ২০ হাজার পয়েন্টের মাধ্যমে দেশের সর্বত্র সচেতনতা এবং স্যানিটাইজেশন কার্যক্রম চালাচ্ছে বাংলাদেশি মাল্টিন্যাশনাল ব্র্যান্ড ওয়ালটন।

এ উদ্দেশ্যে গত মঙ্গলবার ওয়ালটনের একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের (ডিজিএইচএস) সঙ্গে বৈঠক করেছে। বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিজিএইচএসের এডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেল অধ্যাপক সানিয়া তাহমিনা, ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. মোহাম্মদ মারুফুর রহমান, ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও রেফ্রিজারেটর বিভাগের সিইও প্রকৌশলী গোলাম মুর্শেদ এবং প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডাক্তার ইয়াজদান রেজা চৌধুরী।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি হাসপাতালগুলোতে প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার সেট এফডিএ এবং সিই সার্টিফাইড বিশ্বমানের পিপিই দিচ্ছে ওয়ালটন। যার মধ্যে রয়েছে প্রোটেকটিভ স্যুট, মেডিকেল মাস্ক, গøাভস, স্যু কভার, সেফটি গগলস, হেড ক্যাপ এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার। পরবর্তীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চাহিদা অনুযায়ী হাসপাতালগুলোর জন্য অক্সিজেন সরবরাহ যন্ত্রসহ (ভেন্টিলেটর) আরো বিপুল পরিমাণ পিপিই সরবরাহ করবে ওয়ালটন।

এদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে মানুষের জন্য সামাজিক সংগঠন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনে ১০ লাখ টাকা দিয়েছে ওয়ালটন। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের চাহিদা মেটাতে যারা হিমশিম খাচ্ছেন, এ রকম ৪০ হাজার মানুষের খাবার সরবরাহে কাজ করছে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন। দুস্থ শিশুদের মধ্যে ‘এক টাকায় আহার’ বিতরণ করে ব্যাপক সুনাম অর্জন করে এই সংস্থাটি।

গত মঙ্গলবার বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের ঢাকাস্থ কার্যালয়ের প্রধান সালমান খান ইয়াসিনের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন ওয়ালটনের ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম এবং টিভি বিভাগের সিইও মোস্তফা নাহিদ হোসেন।

ওয়ালটনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম জানান, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ফর্মূলা অনুযায়ী হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করছে ওয়ালটন। সেগুলো বিনামূল্যে দেশব্যাপী বিতরণ করা হচ্ছে। পাশাপাশি সংবাদকর্মীদের সুরক্ষায় মাস্ক, গøাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ইত্যাদি সরবরাহ করছে ওয়ালটন।

বাজার ব্যবস্থা ও আমদানি রপ্তানি পর্যবেক্ষণে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু

কাগজ প্রতিবেদক : বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব বিবেচনায় বাজার ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ ও আমদানি-রপ্তানি বিষয়ে তথ্য সরবরাহে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশ সচিবালয়ের ৩ নম্বর ভবনের ২৩ নম্বর কক্ষে এ নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন নম্বর-০২-৯৫৪৫৮৫৩। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রণ কক্ষে যে কোনো প্রয়োজনে টেলিফোনে যোগাযোগ করা যাবে।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত যোগাযোগ করা যাবে। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র-শনিবারসহ আগামী ২৯ মার্চ পর্যন্ত এটি খোলা থাকবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পালাক্রমে এ নিয়ন্ত্রণ কক্ষে দায়িত্ব পালন করবেন বলেও জানান তিনি।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj