কেশবপুরে শরিফুল হত্যার আসামি ইদ্রিস আটক

বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০

জাহিদ আবেদীন বাবু, কেশবপুর (যশোর) থেকে : যশোরের কেশবপুরে বেকারি ব্যবসায়ী শরিফুলকে হত্যার ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন করা হয়েছে। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফজলে রাব্বী এটি উদ্ঘাটন করেন। খুনি ইদ্রিসকে গ্রেপ্তার এবং ঘটনাস্থলের অদূরে একটি পুকুর থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

আসামি ইদ্রিস ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। টাকা-পয়সা লেনদেনের ঘটনার জেরে খুন করা হয় বলে আদালতে স্বীকারোক্তি দেয় তার ঘাতক বন্ধু ইদ্রিস আলী। দুই দিন রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার যশোর আদালতে হাজির করা হলে ইদ্রিস আলী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে দাঁড়িয়ে এ জবানবন্দি দেয়। ইদ্রিস আলী সাতাড়িয়া গ্রামের মুনাম মোড়লের ছেলে।

কেশবপুর থানার ওসি জসিম উদ্দীন জানান, ব্যবসায়ী শরিফুল শুক্রবার রাতে খুন হওয়ার পর শনিবার রাতে ইদ্রিসকে আটক করে দুই দিনের রিমান্ড আবেদন চেয়ে যশোর আদালতে পাঠালে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

থানা রিমান্ডে আটক ইদ্রিস স্বীকার করে বলেন, টাকা-পয়সা লেনদেনের ঘটনা নিয়ে তাদের দুই বন্ধুর মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনার জের ধরে গত ২০ মার্চ রাতে সে নিজে বন্ধুকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ছুরি দিয়ে খুন করে। স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ঘটনাস্থলের পাশের একটি পুকুর থেকে খুনে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, কেশবপুর উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের ইমদাদুল হক মোড়লের ছেলে শরিফুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো গত বৃহস্পতিবার তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলে করে পাটকেলঘাটা বাজারের আল মদিনা বেকারি থেকে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে দিনের বেলায় বিভিন্ন এলাকায় দোকানে সরবরাহ শেষে রাতে ওই সব দোকান থেকে টাকা আদায় করে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পথিমধ্যে সাতবাড়িয়া-কড়িয়াখালী বাজারের মাঝখানে মর্শিনা বিলপাড় এলাকায় খুন হন তিনি। পরে এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে ২০ মার্চ কেশবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj