নতুন আক্রান্ত নেই, আরেকজনের মৃত্যু

বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরেক জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে পাঁচজন। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা এখনো পর্যন্ত ৩৯ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন আরো দুইজন। এ নিয়ে আক্রান্তের পর সুস্থ হয়েছেন ৭ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২৭ জন।

গতকাল বুধবার দুপুরে অনলাইন লাইভ করোনা পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৮২ জনসহ এ পর্যন্ত ৭৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আইসোলেশনে আছেন ৪৭ জন এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনেও আছেন ৪৭ জন।

গতকাল মৃত ওই ব্যক্তি প্রসঙ্গে আইইডিসিআর পরিচালক জানান, ৬৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির মধ্যে গত ১৮ মার্চ সংক্রমণ ধরা পড়ে। তিনি বিদেশ থেকে আসা একজনের সংস্পর্শে এসেছিলেন। অসুস্থ হওয়ার পর তিনি ঢাকার বাইরে একটি হাসপাতালে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার কারণে তাকে ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তিনি ডায়াবেটিস এবং হাইপারটেনশনে ভুগছিলেন।

করোনা ভাইরাস শনাক্ত করার পরীক্ষার সুবিধা ঢাকা ও ঢাকার বাইরের সব বিভাগীয় হাসপাতালে সম্প্রসারণ করা হচ্ছে উল্লেখ করে অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, এতদিন পর্যন্ত ঢাকার আইইডিসিআরের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষা করা হতো। এখন ঢাকাসহ সারাদেশেই তা স¤প্রসারণ করা হচ্ছে। ঢাকার মধ্যে জনস্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান, ঢাকা শিশু হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পরবর্তীসময়ে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করা হবে। পর্যায়ক্রমে ঢাকার বাইরে এই পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করা হবে। ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশন ডিজিজ, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে আইইডিসিআরের ফিল্ড অফিসে এই পরীক্ষা পদ্ধতি চালু আছে। বিভাগীয় পর্যায়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ, রংপুর মেডিকেল কলেজ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পরবর্তী সময়ে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও এই পরীক্ষা পদ্ধতি স¤প্রসারিত করা হবে। জনগণ যাতে সুবিধামতো তাদের সেবাটি পেতে পারেন সে লক্ষ্যেই এ পরীক্ষা পদ্ধতি দেশব্যাপী স¤প্রসারিত করা হচ্ছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj