গৃহবন্দি কিউই ক্রিকেটাররা

শনিবার, ২১ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে ও ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে অস্ট্রেলিয়া গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। এর মধ্যে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি খেলেছিল দুদল। কিন্তু করোনা ভাইরাস আতঙ্কে প্রথম ম্যাচের পর স্থগিত করে দেয়া হয় সিরিজটি। ফলে সিরিজের মাঝপথে দেশে ফিরে আসে কিউই ক্রিকেটাররা। অস্ট্রেলিয়ায় খেলতে যাওয়া নিউজিল্যান্ড দলের সকলকে এখন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সরকার। নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ জারি করেছেন যারাই বিদেশ থেকে এসেছেন তাদের সকলকে বাধ্যতামূলকভাবে দুই সপ্তাহের জন্য হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

এ বিষয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স ম্যানেজার রিচার্ড বুক বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড দলের সব খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফ সকলেই কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তাদের সকলকে ধারণা দেয়া হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইন সম্পর্কে’। তিনি আরো জানিয়েছেন দলের সকলে এই নির্দেশনা মেনে চলছে এবং তা খুব শক্তভাবে মানা হচ্ছে। চলমান করোনা আতঙ্কে এখন পর্যন্ত ৩টি আন্তর্জাতিক সিরিজ বাতিল বা স্থগিত করা হয়েছে। সর্বপ্রথম বাতিল হয় ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। অবশ্য এই সিরিজটি মাঠে গড়ানোর আগেই বাতিল হয়ে যায়। যদিও ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা সেই সময় শ্রীলঙ্কাতেই ছিলেন। অন্যদিকে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজটি ১ ম্যাচ হওয়ার পর বাতিল করা হয়েছিল।

তবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতের মধ্যকার সিরিজটির প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে মাঠে গড়ায়নি। ওই ম্যাচটি হওয়ার কথা ছিল ধরমশালা স্টেডিয়ামে। যদিও ওই ম্যাচটিতে বিসিসিআই বলেছিল যেন দর্শক কম আসে। কিন্তু বৃষ্টির মধ্যেও অনেক দর্শক মাঠে এসে উপস্থিত হয়েছিল। আর ভারত সরকার থেকেও বলা হয়েছিল যেন ম্যাচগুলো স্থগিত করে দেয়া হয়। ফলে সিরিজের বাকি ম্যাচগুলো স্থগিত করে দেয় বিসিসিআই। ভারত থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল তাদের দেশে ফিরে যাওয়ার পর তাদেরও কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj