যা বললেন মিরাজ…

শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : করোনা ভাইরাস আতঙ্কে স্থগিত করে দেয়া হয়েছে বিশ্বের সবধরনের খেলাধুলা। যদিও ইউরোপিয়ান লিগগুলো সময় দিয়েছে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে আবার শুরু হবে খেলা। তবে এ নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। কারণ করোনা পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। করোনার এই থাবা এসে পড়েছে বাংলাদেশেও। এর ফলে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে সব ধরনের টুর্নামেন্ট। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের খেলা চলছিল তাও এখন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে এখন ক্রিকেটাররা বেকার বসে আছেন। তবে এই খেলাধুলার চেয়ে এখন নিরাপত্তা ও সুস্থ থাকাকেই এগিয়ে রাখছেন টাইগার ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ। তার মতে সুস্থ থাকলে ও বেঁচে থাকলে ক্রিকেট খেলা যাবে। বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মিরাজ বলেন, ‘খেলার চেয়ে জীবন বড়, আগে তো বাঁচতে হবে। আসলে সবার আগে কিন্তু জীবন মরণ। জীবন মরণের চেয়ে তো আর বড় কোনো কিছুই হতে পারে না। আগে সেফটি, তারপর সব। আমরা আগে যদি বাঁচতে পারি, তাহলে অবশ্যই ক্রিকেট খেলতে পারব’। তিনি আরো বলেন, ‘তারপরও ক্রিকেট বোর্ড আছে, বাংলাদেশের সরকার আছে তারা যে সিদ্ধান্ত নেবেন, অবশ্যই মানুষের ভালোর জন্যই নেবেন। সবাই যেন সেফটি থাকে, সে ডিসিশনটা তারাই দেবেন’।

তাছাড়া অন্য সবার মতো মিরাজও আতঙ্কে আছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। মিরাজ বলেন, ‘মাঠে আসতেছি। কিন্তু সবাই একটু আতঙ্কের মধ্যে আছে। একটা মানুষের দেখা হলে তো আমাদের স্বাভাবিক আচরণ যেটা- হ্যান্ডশেক করা, জড়িয়ে ধরা, হয়তো এই জিনিসটা এখন হচ্ছে না বা কম হচ্ছে। কিন্তু তারপরও তো আমরা বাঙালি আবেগের জায়গা থেকে আমরা জড়িয়ে ধরি, হ্যান্ডশেক করি। তারপরও আমি মনে করি যে যতটুকু নিরাপদ থাকা যায় সবাই যতটুকু একটু দূরে থাকা যায়। হয়তো খুব তাড়াতাড়ি আল্লাহ রহম করবে। কারণ সবাই দোয়া করছে, আল্লাহ যেন সবাইকে হেফাজত রাখে’। তাছাড়া এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে সকলকে পাক পবিত্র থাকার কথাও বলেছেন মিরাজ। আর এজন্য তিনি ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার কথা বলেছেন। মিরাজ বলেন, ‘আমি সবাইকে যে মেসেজটা দিতে চাই- সবসময় পাক-পবিত্র থাকাটা খুব জরুরি। থুথু না ফেলাও কিন্তু পাক-পবিত্রতার মধ্যে পড়ে। সব সময় হাত ধোয়ার ভেতরে থাকাটা ভালো। যেমন ঘণ্টায় ঘণ্টায় বা বাসায় থাকলে বা বাইরে থেকে এলে হাত ধোয়া। হাত ধোয়ার বিভিন্ন যেসব নিয়ম আছে এই নিয়মগুলো মানাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সবচেয়ে ভালো থিওরি হলো, আপনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন। তাহলে আপনার আর কিছু লাগবে না আমার মনে হয়। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সবাই পড়বে। তাহলে পাঁচবার হাত ধোয়া হবে। অটোমেটিক তখন আল্লাহর রহমত হবে’।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj