রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার পাচ্ছে তামাক কোম্পানি!

শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : ‘রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার-২০১৮’ এর প্রথম পুরস্কার পাচ্ছে বহুজাতিক তামাক কোম্পানি ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ (বিএটিবি)। জাতীয় স্বার্থের বিপরীতে একটি মৃত্যু বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানকে রাষ্ট্রপতির নামে পুরস্কার প্রদান অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

বাংলাদেশে প্রতিদিন ৩৪৫ জন মানুষ তামাক ব্যবহারের কারণে অকালে মারা যায়। বাংলাদেশের সংবিধানের ১৮(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জনস্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও সুরক্ষার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। সুতরাং তামাক কোম্পানিকে পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে রাষ্ট্র এই মৃত্যু বিপণনকে উৎসাহিত করতে পারে না।

গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো তামাকবিরোধী গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞার (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তামাকের ক্ষতি থেকে বিশ্ববাসীকে সুরক্ষার জন্য ২০০৩ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আন্তর্জাতিক চুক্তি এফসিটিসি প্রণয়ন করে এবং বাংলাদেশ এই চুক্তিতে প্রথম স্বাক্ষরকারী দেশ। বাংলাদেশে ২০১৭-১৮ সালে তামাক ব্যবহারের অর্থনৈতিক ক্ষতির (চিকিৎসা ব্যয় এবং উৎপাদনশীলতা হারানো) পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার ৫৬০ কোটি টাকা। প্রজ্ঞার নির্বাহী পরিচালক এ বি এম জুবায়ের বলেন, তামাক কোম্পানিকে এ ধরনের পুরস্কার প্রদান করার অর্থ হচ্ছে তাদের ব্যবসাকে উৎসাহিত করা। অথচ প্রধানমন্ত্রী তামাক ব্যবহারের ভয়াবহতা উপলব্ধি করে ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। তামাক ব্যবসাকে উৎসাহিত করে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জন সম্ভব নয়। তামাকের ভয়াবহতা থেকে জাতিকে রক্ষার জন্য এবং তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের পথ সুগম করতে অবিলম্বে ‘রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার ২০১৮’ সংশোধন করে তামাক কোম্পানির নাম এই পুরস্কার প্রদানের তালিকা থেকে প্রত্যাহার করতে হবে এবং একই সঙ্গে ভবিষ্যতে তামাক কোম্পানিকে সরকারের সব পুরস্কার প্রদানের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj