রাস্তায় সমস্যা হলে…

রবিবার, ১৫ মার্চ ২০২০

সিমকার্ড এবং চার্জার : যে কোনো জায়গায় যে কোনো নম্বর থেকেই জরুরি পরিস্থিতিতে বিনামূল্যে ৯৯৯ এ ফোন করে সাহায্য চাওয়া যায়, এই সার্ভিস পাওয়া যায় দিন রাত চব্বিশ ঘন্টাই। তাই গাড়ি নিয়ে বেড়িয়ে বিপদে পড়লে নিজের ফোন থাকুক বা না থাকুক, হারিয়ে যাক কিংবা সেদিন ভুলে বাসায় সেলফোনটি রেখে বের হলেও যেন সাহায্য চাওয়ার ব্যবস্থা থাকে, সেজন্যই গাড়ির গøাভ কম্পার্টমেন্টে একটি অতিরিক্ত সেলফোন রাখুন। সেল ফোনের সঙ্গে সঙ্গে তার চার্জারটিও রাখুন এবং সেলফোনটি সুইচড অফ করে রাখুন, এতে চার্জ বেঁচে থাকবে ব্যাটারির। তারপরও একটা নির্দিষ্ট সময় পর পর ফোনটি অন করে ফুল চার্জ করে আবার সুইচড অফ করে গøাভ কম্পার্টমেন্টে রাখুন।

ইন্সুরেন্স সংক্রান্ত তথ্য এবং নম্বর : আপনার গাড়ির ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির টেলিফোন অথবা মোবাইল নম্বর সবসময় আপনার সেলফোনের সেভ করা কন্টাক্টের ইজি একসেসে রাখুন, সঙ্গে নোট প্যাডে গাড়ির ইন্স্যুরেন্স নম্বরও যাতে সহজেই তাদের তথ্য দিতে পারেন। সবচেয়ে ভালো হয় এ সব কিছুর সঙ্গে ইন্স্যুরেন্স পেপারের একটা ছবিও ফোনে তুলে রাখা যাতে ইন্স্যুরেন্স নম্বর, কন্টাক্ট নম্বর একসঙ্গেই থাকবে, ছবিটি গুগল ডক কিংবা যে কোনো ক্লাউডে আপলোড করে রাখুন। এ ছাড়াও একটি সাদা কাগজেও প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো লিখে গøাভ কম্পার্টমেন্টে রাখতে পারেন।

ইমার্জেন্সি কিট : গাড়িতে একটা ইমার্জেন্সি কিট সবসময় সংরক্ষণ করুন। বক্সে অথবা ট্রাংকে রাখা ইমার্জেন্সি কিট আপনাকে রোড সাইড ইমার্জেন্সিতে সাহায্য করবে। ক্যালিফোর্নিয়া হাইওয়ে পেট্রোল গবেষণা করে ইমার্জেন্সি কিটে যা যা থাকা উচিত, তার দারুণ একটা লিস্ট রেখেছে তাদের ওয়েবসাইটে। এর সাথে ফার্স্ট এইড কিট যেমন ব্যান্ডেজ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, এন্টিবায়োটিক ওয়েনমেন্ট, বাগ ¯েপ্র, এসপিরিন, কটন বলস, গজ, চিমটা ইত্যাদিও রাখা যেতে পারে। এ ছাড়াও একটি ছোট আকারের অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র, রোড ফ্লেয়ারস, জাম্পার ক্যাবল, রেইন কোট/ক্যাপ, ফাঁদ, অতিরিক্ত ব্যাটারি সমেত ফ্লাশলাইট, ন্যাকড়া জাতীয় কাপড়, খাবার পানি, শুকনো খাবার রাখার সঙ্গে সঙ্গে বেসিক টুলের একটা সেটও রাখা যেতে পারে প্রয়োজন বুঝে।

অতিরিক্ত সাবধানতা : শীত সবসময়ই গাড়ি চালানোর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপদজনক সময়। বিশেষত শীতের দেশে, যেখানে তুষারপাত হয় প্রায়ই, এমন রাস্তায় ড্রাইভে বেরুলে প্রস্তুতিতেও রাখতে হবে সাবধানতা। ট্রাংকে একটা ব্লুাংকেট, কিছু অতিরিক্ত শীতের কাপড়, অতিরিক্ত শুকনো এবং ক্যালরি সমৃদ্ধ খাবার রাখতে পারেন।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ

নারীর প্রিয় বাহন স্কুটিগত এক দশকে প্রজন্মের বাহন হিসেবে মোটর সাইকেলের জনপ্রিয়তা বেড়েছে কয়েক গুণ। চলতি পথে কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানো ও গতিময়তার সম্মিলনে প্রিয় বাহন হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে মোটর সাইকেল। বর্তমানে কোথাও যেতে হলে পোহাতে হয় যানজটের ঝক্কি, তার ওপর সময়মতো গাড়ি পাওয়া যায় না, আর পেলেও প্রায়ই গুনতে হয় ডাবল ভাড়া। ফলে অফিস কিংবা গন্তব্যে যেতে প্রায়ই দেরি হয়ে যায়, পোহাতে হয় সীমাহীন দুর্ভোগ। এ সব ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে নিজের একটি বাহন এখন বেশ দরকারি। তাই পুরুষের পাশাপাশি আধুনিক অনেক নারীরই বাহন হিসেবে বেছে নিচ্ছেন পছন্দসই একটি মোটর সাইকেল। এ ক্ষেত্রে স্কুটিই এখন অনেক নারীর প্রথম পছন্দ-

Bhorerkagoj