তোমাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা >> হে বন্ধু, সহযাত্রী : দন্ত্যস সফিক

শনিবার, ১৪ মার্চ ২০২০

‘ঈঁঃ ুড়ঁৎ পড়ধঃ ধপপড়ৎফরহম ঃড় ুড়ঁৎ পষড়ঃয’ -অভিজ্ঞতালব্ধ প্রবচন। কিন্তু আয় বুঝে ব্যয় করার ইচ্ছা আগেই ছেড়ে দিয়েছিলাম, শুধু ভালোবাসার শক্তির ওপর ভর করে। আশায় বসতি ছিল বলেই ৬ মার্চ ভোরের কাগজ পাঠক ফোরামের চড়–ইভাতি আয়োজন শেষ হলো সাফল্যের মুকুট পরে। মানিকগঞ্জের বালিয়াটি প্রাসাদ দেখা শেষ করে ধামরাইয়ের মহিশাষীর মোহাম্মদী গার্ডেনের নানান আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে নিখুঁতভাবে। ১২০ জনের বড় বহর নিয়ে চড়–ইভাতি আয়োজনের শেষে একটু পেছন ফিরে তাকাতে হয়। এই পরিকল্পনার শুরু সেই ডিসেম্বর ২০১৯ থেকে। যাদের পূর্ণ সহযোগিতায় এই সফল আয়োজন, সেই তালিকার অগ্রভাগে আছেন শ্যামল দত্ত। আমাদের প্রিয় মানুষ, শ্রদ্ধার মানুষ শ্যামল দা ভোরের কাগজ সম্পাদক। তার অনুপ্রেরণায় ও পাঠক ফোরাম বিভাগীয় সম্পাদক মুকুল শাহরিয়ারের সার্বিক সহযোগিতায় ভোরের কাগজ পাঠক ফোরাম একের পর এক ইভেন্ট আয়োজন করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় এই চড়–ইভাতি। এই আয়োজনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন সিদ্দিক ট্রেডার্স ও সিদ্দিক ডেভেলপারস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. সাইফুল ইসলাম। শুধু সহযোগিতা নয়, সম্পূর্ণ আয়োজনজুড়েই ছিল এই মানুষটির আন্তরিক বিচরণ। পুরো প্রস্তুতির সময়ে বেশ কয়েকবার আমরা বসেছিলাম খাজা হারিস ভাইয়ের মতিঝিলের রহমান চেম্বারের এমএইচটিএন ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলস অফিসে। পুরো আয়োজনজুড়ে আমরা তাকে মিস করেছি। তবুও তিনি শেষ পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে ছিলেন।

তার প্রতিষ্ঠানের সৌজন্যেই ছিল র?্যাফেল ড্রর গ্র্যান্ড প্রাইজ ঢাকা-সিলেট-ঢাকা এয়ার টিকেট। দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার ঢাকা-চট্টগ্রাম এয়ার টিকেটের ব্যবস্থাও করে দিয়েছেন তিনি।

আরো সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন পপুলার পেপার হাউসের স্বত্বাধিকারী মো. কবির হোসেন, এএস ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী পাফো বন্ধু মো. ইউসুফ। তাদের কল্যাণে হাসি ফুটেছিল শিশুদের মুখে। পাফো বন্ধু মো. রাশেদ শুধু সহযোগিতা নয় আদ্যন্ত সঙ্গে ছিলেন।

মো. মোসলেম উদ্দিন মাসুম একজন সাদা মনের মানুষ। তিনি ব্যবসা সামলান, যুক্ত আছেন সমাজসেবায়, সামলান ধামরাই ইউনিয়নের রাজনীতি। চড়–ইভাতির ধামরাই অংশের আদি থেকে অন্ত পর্যন্ত সব কাজেই ছিল তার সহায়তা। কটেজ ভাড়া থেকে ডেকোরেশন, সাউন্ড সিস্টেম সবকিছুতে তার সহায়তা মনে রাখার মতো। এমন নিখাঁদ মানুষ এই সময়ে পাওয়া দুষ্কর। তার মতো আরো একজনের দেখা পেলাম চড়–ইভাতিতে এসে। সিরাজুল ইসলাম সিরাজ নামের এই মানুষটি আমাদের কাছে অচেনা হলেও ধামরাইয়ে তার বেশ নামডাক। একসময়ের তুখোড় ছাত্রনেতা, সৎ, সমাজসেবক মানুষটি ধামরাই উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান।

ভোরের কাগজ সাটুরিয়া প্রতিনিধি অলক রায়ের কথা না বললেই নয়। আমরা বালিয়াটি প্রাসাদে পৌঁছবার আগেই তিনি প্রবেশাধিকারের ব্যবস্থা সেরে রেখেছিলেন। সামান্য সময়ে যে আন্তরিকতা দেখিয়েছেন তিনি, তা মনে থাকবে অনেক অনেক দিন।

র‌্যাফেল ড্রতে ৪টি পুরস্কার দিয়ে কৃতজ্ঞতার বন্ধনে আবদ্ধ করেছে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড। আগামীতেও তাদের সহযোগিতা প্রত্যাশা করি আমরা। কৃতজ্ঞতা জানাই আমাদের আরেক শুভাকাক্সক্ষী ভোরের কাগজের সিনিয়র সহসম্পাদক হিলালী ওয়াদুদ চৌধুরীকে। তিনিও র‌্যাফেল ড্রর ৪টি পুরস্কার জোগাড় করে দিয়েছেন।

অংশগ্রহণকারী সব বন্ধুকে ধন্যবাদ। তারা ছিলেন বলে এমন জমকালো আয়োজন করতে পেরেছে পাঠক ফোরাম। শেষান্তে চড়–ইভাতি উদযাপন পরিষদ আহ্বায়ক সুব্রত শেখর ভক্ত ও সদস্য সচিব কাজী সেলিম উদ্দিনের কথা বলতেই হবে। শক্ত হাতে হাল ধরেছেন বলে এই পথ পাড়ি দেয়া গেছে। নাসির উদ্দিন পাটোয়ারি, রেজাউর রহমান সবুজ, সামসুল করিম হারুন, ওমর ফারুক দোলা, কামরুল, কাওসার, আবদুস সালাম শাওন, মো. জাহিদ, বন্ধু বাবু, অরুন রায়সহ যারা সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন তাদের সবার প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা, ভালোবাসা। আমাদের এক বড় ভরসা এই অভিজ্ঞতা আর তারুণ্যের শক্তি। তাই আগামী দিন নিয়ে স্বপ্ন দেখতে এখন আর কোনো ভয় নেই।

:: সভাপতি, ভোরের কাগজ পাঠক ফোরাম, ঢাকা পরিবার

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj