করোনা রোধে মরিয়া বিশ্ব

শনিবার, ৭ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : বিশ^জুড়ে কর্মকর্তারা করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। শহরে ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়ার পর বেথেলহেমে ৩০ দিনের জন্য স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়। ফিলিস্তিনি অঞ্চলে এই প্রথম আক্রান্তের খবর পাওয়া গেল। দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনের পর এবার অস্ট্রেলিয়া দক্ষিণ কোরিয়া ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। চীনের পর দক্ষিণ কোরিয়াতে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ইন্দোনেশিয়া দক্ষিণ কোরিয়ার কিছু অংশ এবং ইরান ও ইতালি তে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এই দুটি দেশেই স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এই ভাইরাসটি বিশ^বাজারেও তার প্রভাব অব্যাহত রেখেছে। বিনিয়োগকারীরা এই প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারে লক্ষণীয় দরপতন হয়। ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির শেয়ারবাজারেও ১ শতাংশের ওপরে দরপতন হয়।

৭৫ দেশের লাখো মানুষ আক্রান্ত : করোনা ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে গোটা বিশ্বে। বিশ্বের ৭৫টি দেশের লাখো মানুষ আক্রান্ত হয়েছে করোনা ভাইরাসে। চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং করোনা মহামারির কারণে আগামী মাসে তার জাপান সফর বাতিল করেছেন। করোনা ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে গোটা বিশ্বে। বিশ্বের ৭৫টি দেশের ৯৫ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছে করোনা ভাইরাসে। চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং করোনা মহামারির কারণে আগামী মাসে তার জাপান সফর বাতিল করেছেন। করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি চীনে। সা¤প্রতিক সময়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে গোটা বিশ্বে। ভাইরাসে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। জাপানে শনাক্ত হয়েছে এক হজার জন। তাদের অনেকেই ক্রুজ শিপে গিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন এবং ফিরে এসে জাহাজেই ইয়োকোহামা বন্দরে কোয়ারেন্টাইনে থাকেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাসে ছড়ানোর আশঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। চীনের পর ইতালি হচ্ছে সবচেয়ে আক্রান্ত দেশ। ৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত এখানে। মারা গেছেন প্রায় শ’খানেক। ১৫ মার্চ পর্যন্ত ইটালির সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

ভারতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সৌদি আরবে ওমরা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত দেশের বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে নাগরিকদের। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ও ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনা সবচেযে বেশি ছড়িয়েছে। ১১ জন মারা গেছেন ইতোমধ্যেই। অন্যান্য রাজ্য জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। বুধবার প্রতিনিধি পরিষদ করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ৮.৩ বিলিয়ন ডলারের জরুরি তহবিল পাশ করেছে। সেনেটে পাশ হলে প্রেসিডেন্ট স্বাক্ষর করে তা করোনা প্রতিরোধে ব্যয় করা হবে। ক্যালোফির্নিয়া গবর্নর গেভিন নিউসম জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। ওয়াশিংটন, ফ্লোরিডা ও হাওয়াইতেও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হবে অচিরেই।

বিশ্বব্যাপী ওষুধ সংকট : করোনা ভাইরাসের কারণে ভারত নির্দিষ্ট কিছু ওষুধের রপ্তানি সীমিত করায় বিশ্বব্যাপী ওষুধের অভাব দেখা যাওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। বিশ্বের বৃহত্তম সরবরাহকারী ওষুধ প্রতিষ্ঠান জেনিরিক মেডিসিন ব্যথা কমানো ও জ্বর সারানো সংক্রান্ত ২৬টি ওষুধ এবং ওষুধ তৈরির উপাদান রপ্তানি নিষিদ্ধ করায় এমন শঙ্কা রয়েছে। নিষিদ্ধ এই ওষুধের মধ্যে বিশ্বের অন্যতম ব্যবহৃত ব্যথা উপশমকারী ওষুধ প্যারাসিটামলও রয়েছে। জানা যায়, চীনের করোনা ভাইরাসের কারণে দেশটির অনেক ড্রাগ প্রস্তুতকারক বন্ধ হয়ে গেছে।

বিবিসির তথ্যমতে, ভারত বিশ্বের সর্ববৃহৎ ওষুধ নির্মাতা হলেও ওষুধ তৈরিতে যেসব রাসায়নিক উপাদান ব্যবহৃত হয় সেগুলোর জন্য ভারতকে চীনের ওপর ৭০ ভাগ নির্ভর করতে হয়। যেকারণে শিল্প বিশেষজ্ঞরা এই ভয়াবহ মহামারির ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

চীনা মার্কেট রিসার্চ গ্রুপের বিশ্লেষক শন রেন বলেছেন, যদি চীন ওষুধ উৎপাদনে অলসতা দেখায় আর ভারত ও পাশাপাশি ওষুধের রপ্তানি বন্ধ করে দেয় তবে বিশ্বব্যাপী ওষুধের ঘাটতি দেখা দিতে পারে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের বড় ওষুধ সংস্থাগুলো জানিয়েছে, তারা তাদের ওষুধ রপ্তানি সরবরাহ সংক্রান্ত বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করছে।

২৯ কোটি শিক্ষার্থী স্কুল-কলেজে যাচ্ছে না : করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী ২৯ কোটি শিক্ষার্থীর এখন স্কুল-কলেজে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। সর্বশেষ বুধবার ইতালি দেশের সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে। গত বছরের শেষ দিকে চীনের উহান শহর থেকে উৎপত্তির পর বিশ্বের ৮০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। এ পর্যন্ত ৯৫ হাজারের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন তিন হাজার ২০০ জন। অবশ্য আক্রান্ত ও মৃতের অধিকাংশ ঘটনাই চীনের উহান শহরের। ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পর শহরের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রায় দুই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে।

চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি ভাইরাস সংক্রমিত দেশ হচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটির ছয় হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২৩ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের আহ্বানের পর জাপানের প্রায় সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ১৫ মার্চ পর্যন্ত ইতালির সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো বুধবার জানিয়েছে, ১৩টি দেশ তাদের সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে। এর প্রভাব পড়েছে ২৯ কোটি পাঁচ লাখ শিক্ষার্থীর ওপর। এছাড়া আরো ৯টি দেশ তাদের আক্রান্ত অঞ্চলগুলোর স্কুল বন্ধ রেখেছে। ইউনেস্কোর প্রধান অড্রে আজুলে বলেছেন, শিক্ষা ব্যাহত হওয়ার বর্তমান চিত্র নজিরবিহিন এবং এটা যদি আরো দীর্ঘায়িত হয় তাহলে শিক্ষার অধিকারের জন্য তা হুমকি হয়ে উঠতে পারে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj