টুকি-টাকি

শনিবার, ৭ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস আতঙ্ক : স্ত্রীকে বাথরুমে আটকে রাখলেন স্বামী

কাগজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাস আতঙ্কে দুই সন্তানসহ স্ত্রীকে টয়লেটে আটকে রেখেছে এক ব্যক্তি। বুধবার লিথুয়ানিয়ার রাজধানী ভিলনিয়াস শহরে এ ঘটনা ঘটেছে। লিথুয়ানিয়ায় পুলিশের মুখপাত্র রামুনাস ম্যাটোনিস বলেন, করোনা ভাইরাস সন্দেহে এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে বাথরুমে আটকে রেখেছিল। সাথে দুই সন্তানও ছিল। তিনি আরো জানান, ওই ব্যক্তির স্ত্রী কয়েকদিন আগে এক চীনা নারীর সঙ্গে দেখা করেছেন, যিনি ইতালি থেকে এসেছেন। এরপর স্ত্রীরও করোনা হতে পারে এমন আতঙ্কে তাকে বাথরুমে আটকে রাখেন। ওই ব্যক্তির স্ত্রী পুলিশে ফোন করে এ ঘটনা জানান। পরে পুলিশ দ্রুত এসে তাকে উদ্ধার করে। তবে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির দাবি, স্ত্রীকে বাথরুমে আটকে রেখে তিনি চিকিৎসকের কাছে পরামর্শ নিচ্ছিলেন যে কীভাবে সংক্রমণ থেকে বাঁচা যায়। পরবর্তীতে ওই ব্যক্তির স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত কিনা পরীক্ষা করেন। চিকিৎসকেরা জানান, তিনি আক্রান্ত নন। স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, লিথুয়ানিয়ায় নতুন এক মহিলা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনা ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে।

পর্যটকশূন্য হতে যাচ্ছে পর্তুগাল

কাগজ ডেস্ক : পর্তুগালে আরও তিন পর্তুগিজ নাগরিকের দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ জনে। সন্দেহ থাকায় সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ১১৭ জনকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানী লিসবনে ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন নারীর শরীরে এ ভাইরাসের সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পর্তুগালে জনজীবনে করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এ দেশের নাগরিকদের মধ্যেও এই জীবন যাত্রার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। পর্তুগাল পর্যটক নির্ভর দেশ। এখানে প্রচুর সংখ্যক পর্যটক এসে থাকেন। করোনার প্রভাবে পর্তুগালে পর্যটকের উপস্থিতি কমতে শুরু করেছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj