মাশরাফির সেঞ্চুরি

মঙ্গলবার, ৩ মার্চ ২০২০

মাশরাফি বিন মর্তুজা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম বোলিং স্তম্ভ ও একদিনের আন্তর্জাতিক দলের সবচেয়ে সফলতম অধিনায়ক। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বোলিংয়ে নেমেই ২ উইকেট প্রাপ্তি তাকে নিয়ে গেছে অনন্য এক রেকর্ডের সামনে। কেননা এই উইকেট দুটি নিয়ে ওয়ানডেতে পঞ্চম অধিনায়ক হিসেবে উইকেট সংখ্যার দিক থেকে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন তিনি। দীর্ঘ প্রায় সাত মাস পর মাঠে নেমে প্রত্যাবর্তনটা রাঙিয়ে রাখলেন মাশরাফি। ওয়ানডে ক্রিকেটে মাশরাফি সবশেষ উইকেটি পেয়েছিলেন গত বছরের ৮ জুন কার্ডিফে আইসিসি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের ম্যাচে জনি বেয়ারস্টোকে মেহেদী হাসান মিরাজের ক্যাচে পরিণত করে। বোলার হিসেবে ২৬৬ ও অধিনায়ক হিসেবে ৯৮তম আন্তর্জাতিক উইকেট ছিল সেটি। এরপর গেল সাত মাসে কোনো ম্যাচ না খেলায় আর কোনো উইকেটের দেখাও পাননি তিনি।

২০১৪ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজে তিনি পুনরায় অধিনায়কত্ব পান। তবে এ বার তিনি শুধু একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য দায়িত্ব পান এবং এবারো তার সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পান সাকিব আল হাসান। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপেও তিনি বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বোলিংয়ে নেমে মাশরাফি নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পেয়েছিলেন বাংলাদেশের বোলিং ইনিংসের ৯ম ওভারে। অধিনায়ককে আউট করেন অধিনায়ক। আর শততম উইকেটটি আসে ম্যাচের ৪০ ওভারে। ব্যক্তিগত ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলটি মুতুমবদজি শর্ট ফাইন লেগে তুলে মারলে তা স্বাচ্ছন্দ্যেই তালুবন্দি করেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। আর এর মধ্য দিয়েই অধিনায়ক হিসেবে ওয়ানডেতে ১০০ উইকেট শিকার করে পাকিস্তানের ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, দক্ষিণ আফ্রিকার শন পোলক এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের জেসন হোল্ডারদের মতো আইকনিক বোলারদের পাশে নিজের জায়গা করে নেন। রবিবার সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডের ইনিংস বিরতির সময় সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিসি সভাপতি বলেন, অধিনায়ক কে হবে, সেটি চূড়ান্ত করবে বোর্ড। যখন যাকে মনে হয়, তাকে নির্বাচন করবে। মাশরাফি কখন অবসর নেবে, সেটা ওর ব্যাপার। আমার মনে হয় এখানেই শেষ হওয়া উচিত…।

এর আগে নাজমুল হাসান এখনো অধিনায়ক মাশরাফির বিকল্প নেই উল্লেখ করে বলেন, আমি আপনাদের কাছে একটা জিনিসই অনুরোধ করব। আমি সব সময় কিন্তু দুজন খেলোয়াড়ের কথা বলি। খেলোয়াড় হিসেবে সাকিবের কোনো বদলি আমাদের নেই। অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফির কোনো বিকল্প নেই। মাশরাফির অবদান কোনোভাবেই খাটো করার কোনো সুযোগ নেই।

:: আ ত ম মাসুদুল বারী

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj