বাড়ছে সয়াবিন তেলের দাম

মঙ্গলবার, ৩ মার্চ ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : বাজারে পেঁয়াজ, রসুন ও আদার দাম কমলেও বেড়েছে ভোজ্যতেল সয়াবিনের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানেই খোলা সয়াবিনের দাম লিটারে বেড়েছে ৮ থেকে ১০ টাকা। বিক্রেতাদের দাবি, গত কয়েক মাস ধরেই সয়াবিন তেলের খোলাবাজার অস্থির। এদিকে সামনের দিনে পেঁয়াজ, রসুন ও আদার দাম আরো কমতে পারে বলে আভাস মিলছে।

বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, সপ্তাহের ব্যবধানে খোলা সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৮ থেকে ১০ টাকা। কারওয়ান বাজারের পাইকারি দোকানগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে খোলা সয়াবিন ৯০ থেকে ৯৫ টাকা লিটারে বিক্রি হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগেও খোলা সয়াবিন বিক্রি হয়েছে ৮২ টাকা লিটারে। কারওয়ান বাজারের কিচেন মার্কেটের সোনালী ট্রেডার্সের বিক্রয়কর্মী শরীফ বলেন, বর্তমানে খোলা সয়াবিন ৯৫ টাকা লিটারে বিক্রি হচ্ছে। একদিনের ব্যবধানে ব্যারেলে সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ২ হাজার টাকা। গত কয়েক মাস ধরেই সয়াবিন তেলের খোলা বাজার অস্থির। প্রায় প্রতিদিনই দাম ওঠানামা করছে। বাজারে এখন খোলা সয়াবিন তেল নেই। অধিকাংশ দোকানেই খোলা সয়াবিন তেলের সংকট রয়েছে।

তবে খোলা সয়াবিন তেলের দাম বাড়লেও কমছে পামওয়েলের দাম। এখন প্রতি কেজি পামওয়েল বিক্রি হচ্ছে ৭৬ টাকায়, যা এক সপ্তাহ আগেও ৮২ থেকে ৮৩ টাকা লিটারে বিক্রি হয়েছে। আর বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম রয়েছে অপরিবর্তিত। বিভিন্ন ব্র্র্যান্ডের ৫ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন ৯৪ থেকে ৯৮ টাকা লিটারে বিক্রি হচ্ছে। ৫ লিটারের রূপচাঁদা ৪৯০ টাকা, তীর ৪৭০ টাকা, পুষ্টি ৪৭০ টাকা ও সেনা ৪৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। তবে বাজারে চিনি ও লবণের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। গত কয়েক মাস ধরেই মানভেদে চিনি ৬৩ থেকে ৬৪ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর প্যাকেটজাত লবণ বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা কেজিতে।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj