সংসদীয় কমিটিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী : মুজিববর্ষে আসছেন প্রণব মুখার্জি মোদি-সোনিয়াসহ ১৮ বিশিষ্ট জন

বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, দেশটির জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি সোনিয়া গান্ধী ছাড়াও এশিয়ার বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধানসহ প্রায় ১৮ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি মুজিববর্ষের নানা আয়োজনে যোগ দেবেন।

গতকাল মঙ্গলবার বিকালে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তিনি এ তথ্য জানান। কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য এ কে আবদুল মোমেন, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, মো. আবদুল মজিদ খান, মো. হাবিবে মিল্লাত, নাহিম রাজ্জাক, কাজী নাবিল আহমেদ এবং নিজাম উদ্দিন জলিল (জন) অংশ নেন।

এ কে আবদুল মোমেন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিদেশে বাংলাদেশের ৭৭টি মিশনে ২৬১টি কর্মসূচি বাছাই করে তাদের তা পালনের নির্দেশ দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বৈঠকে আমন্ত্রিত অতিথিদের বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কমিটিকে জানায়, ১৮ বিশিষ্ট ব্যক্তি তাদের অংশগ্রহণের ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- প্রণব মুখোপাধ্যায়, সোনিয়া গান্ধী, বঙ্গবন্ধুর নাতনী ব্রিটিশ লেবার পার্টির সাংসদ টিউলিপ রেজওয়ান সিদ্দিকী, ব্রিটিশ লেবার পার্টির সাংসদ রুশনারা আলী, ভিয়েতনামের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য লে থু হা, নেপালি কংগ্রেসের অর্জুন নরসিংহ কে সি, ইউনেস্কোর সাবেক মহাসচিব ইরিনা বোকোভা। এছাড়া মুজিববর্ষ উদযাপনের আয়োজনে আসতে পারেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে সংসদীয় কমিটির বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন করা হয়েছে। চলতি বছরের ১৭ মার্চ হতে আগামী বছরের ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিশ^ব্যাপী যথাযথ মর্যাদায় মুজিববর্ষ পালনের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ আগামী মার্চ-এপ্রিলে অনুষ্ঠেয় কর্মসূচিতে বিভিন্ন দেশের এ পর্যন্ত ১৮ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ তাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছেন।

কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান বলেন, মন্ত্রণালয় জানিয়েছে তারা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সভার আয়োজন, চিত্রপ্রদর্শনী, বিদেশের বিশ^বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন (ব্যাংকক, ওয়ারশ ও হাইডেলবার্গে ইতোমধ্যে স্থাপিত), চ্যান্সারি প্রাঙ্গণ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার দপ্তরে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের উদ্যোগ উল্লেখযোগ্য। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পররাষ্ট্রনীতির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বছরব্যাপী আন্তর্জাতিক সভার আয়োজন, চিত্র প্রদর্শনী, ঢাকায় বিদেশি দূতাবাসগুলোর সঙ্গে ক্রিকেট বা ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন, জাতীয় কন্স্যুলার সেবা সপ্তাহের আয়োজনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

এদিকে গতকালের বৈঠকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য চীন, মিয়ানমার ও বাংলাদেশের সমন্বিত উদ্যোগের সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া দেশের অভ্যন্তরে এবং বিদেশে মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কমিটির সদস্যদের সম্পৃক্ত করার সুপারিশ করা হয়।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj