নারী ফুটবল লিগে গোল উৎসব

মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছেলেদের ফুটবলে যেখানে গোল খরা সেখানে নারী ফুটবল লিগের তিন ম্যাচে ৩০ গোল প্রমাণ করে মেয়েরা গোল করতে পারদর্শী। কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সাত দলের অংশ নেয়ায় শুরু হয়েছে মেয়েদের ফুটবল লিগ। লিগের অংশ নেয়া দলগুলো হলো বসুন্ধরা কিংস, বেগম আনোয়ারা স্পোর্টিং ক্লাব, কুমিল্লা ইউনাইটেড, জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশ, স্পার্টান এম কে গ্যালাকটিকো সিলেট এফসি, এফসি উত্তরবঙ্গ ও নাসরিন স্পোর্টিং ক্লাব। নারী লিগের টাইটেল স্পন্সর ট্রিকোটেক্স। এবার লিগের চ্যাম্পিয়ন দল নগদ ২ লাখ টাকা প্রাইজমানি ছাড়াও পাবে স্বর্ণের ট্রফি। দেয়া হবে তার রেপ্লিকা। রানার্সআপ দল পাবে ১ লাখ টাকা ও ট্রফি। এছাড়া প্রতিটি দল অংশ নেয়া বাবদ পাবে ২ লাখ টাকা করে। শনিবার উদ্বোধনী ম্যাচে বসুন্ধরা কিংস ১২-০ গোলে বেগম আনোয়ারা স্পোর্টিংকে হারায়। রবিবার দ্বিতীয় দিনে প্রথম ম্যাচে জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশ জান্নাতুল ইসলাম রুমির হ্যাটট্রিকে কুমিল্লা ইউনাইটেডকে ৬-১ গোলে হারায়। এবারের লিগে জান্নাত তৃতীয় হ্যাটট্রিক করার গৌবর অর্জন করেন। প্রথম দিনে হ্যাটট্রিক করেছেন বসুন্ধরা অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও কৃষ্ণা রানী সরকার।

ম্যাচের প্রথমার্ধে ৩-১ গোলে এগিয়ে ছিল জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশ। ম্যাচ শুরুর ৬ মিনিটের মাথায় আশামণির গোলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় কুমিল্লা ইউনাইটেড।

১৪ মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করে দলকে সমতায় ফেরান জান্নাতুল ইসলাম রুমি। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। কুরিশা জান্নাত ১৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। ৩৯ মিনিটে রক্ষণভাগের অতন্দ্রপ্রহরী কুরিশা ফের গোল করে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেন। উদ্বোধনী ম্যাচে বেগম আনোয়ারা স্পোর্টিং ক্লাবকে ১২-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বসুন্ধরা কিংসের নারীরা। প্রথম দিন তাদের খেলা দেখে মনে হয়েছিল শিরোপা প্রত্যাশী বসুন্ধরাকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো কেউ নেই। রবিবার কাচারিপাড়া একাদশের খেলা দেখে মনে হয়েছে তারা কিছুটা হলেও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারে। বিকেএসপির কোচ আছিয়া খাতুন বীথিসহ ১৪ খেলোয়াড়কে দলে টেনেছে তারা। সঙ্গে টাঙ্গাইল মোনালিসা স্পোর্টস একাডেমির খেলোয়াড় আছেন চারজন। প্রথম ম্যাচে তারা প্রমাণ করতে পেরেছে, অভিজ্ঞতায় সাবিনা খাতুনদের চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও একেবারে ফেলনা নন তারা। বিকেএসপিতে দশম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত জান্নাতুল ইসলাম রুমি কুমিল্লা ইউনাইটেডের বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭ এবং ৮৮ মিনিটে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন। দলের পক্ষে অপর গোলটি করেন তানিয়া। রবিবার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে স্পাটার্ন এম কে গ্যালাকটিকো সিলেট এফসিকে ১২-০ গোলে হারায় নাসরিন স্পোর্টস একাডেমি। এক ডজন গোল দিয়ে তারা যেন শিরোপার এক নম্বর দাবিদার বসুন্ধরাকে জানান দিল, ‘আমরাও শক্তিশালী।’

সাত দলের লিগে এখন পর্যন্ত ছয়টি দল মাঠে নেমেছে। বসুন্ধরা কিংসের পর শক্তিতে এগিয়ে রাখতে হবে নাসরিন স্পোর্টস একাডেমিকে। নাসরিন একাডেমির প্রায় ১২ জন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের ক্যাম্পে থাকা মেয়ে আছে। দলটির অধিনায়ক রাজিয়া খাতুন বয়সভিত্তিক জাতীয় দলের নিয়মিত সদস্য। এই মেয়েরাই গড়ে দিয়েছে ব্যবধান।

দুই অর্ধে ৬টি করে গোল হয়েছে। হ্যাটট্রিক করেছেন ফরোয়ার্ড স্বপ্না রানী ও আকলিমা খাতুন (৪ গোল)। এ দুজনের হ্যাটট্রিকসহ ৩ ম্যাচে হ্যাটট্রিক হয়েছে ৫টি। বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলাররা এক মৌসুমে ২-৫ লাখ টাকা পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন পাচ্ছেন সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক। বসুন্ধরার পক্ষ থেকে সব ধরনের সুবিধাই দেয়া হচ্ছে তাদের। কোচিং স্টাফসহ আরো অনেক সুবিধা রয়েছে ক্লাবটিতে। আগামী মৌসুমে মেয়েদের লিগে অংশ নেয়া ফুটবলারদের পারিশ্রমিক যে আরো বাড়বে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj