শাবিতে আড্ডায় মাতোয়ারা পাফো সিলেট পরিবার : উদয়ন বড়ুয়া

শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

৭ ফেব্রুয়ারি। ক্যাম্পাসে রীতিমতো হট্টগোল! সভাপতি অমিতাদির পাশাপাশি আমার চোখও ছানাবড়া। ব্যাপার কী? রব উঠেছে- বাউল… বাউল…

– তো কোথায় বাউল?

মিহির মোহন বললেন- চারপাশে নাকি বাউল ঘুরছে!

আজব কথা তো, বাউল আবার ঘুরে ক্যামনে? অমিতা বর্ধনের নেতৃত্বে এবার মিহির মোহনকে চেপে ধরা হলো- ভাইজান ঝাইড়া কাশেন তো?

মিহির মোহন ভাবছিলেন, একটু গুগলি দেবেন, কিন্তু অবস্থা বেগতিক দেখে উন্মোচন করলেন বাউল রহস্য!

জানা গেল, পাফো সিলেটের নির্ধারিত পাক্ষিক আড্ডাকে আরো প্রাণোচ্ছ¡ল করার জন্য পাফোর আরেক বন্ধু বিমান তালুকদার সঙ্গে করে নিয়ে এসেছেন বাউল লাল শাহকে, সহকারী বাপনসহ।

অনিন্দ্য সুন্দর ক্যাম্পাস শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এর পরতে পরতে প্রকৃতির অপরিসীম ব্যঞ্জনা দেখে যে কারো মন ভালো হয়ে উঠবে! বলা চলে নিসর্গের অসামান্য নিবিড় পাঠ এখানটায়…

খানিকটা হেলে পড়া বিকালে প্রথমেই ঝিম ধরা মুহূর্তটা ভাঙলেন বাউল লাল শাহ। একের পর এক গান গেয়ে স্তম্ভিত করে রাখলেন সবাইকে।

এতটাই যে, কতক পথচারী তাদের গন্তব্য ভুলে দাঁড়িয়ে গেলেন, মজে গেলেন বাউলের একতারায়! বেশ ক’জন হিজাব পরা নারীও তাতে শামিল।

সাধারণ সম্পাদক মিহির মোহনের উপস্থাপনায় একে একে লেখা পাঠে যোগ দিলেন বন্ধু দিপু দাস, এমরান খান, আবদুল্লাহ মনির, অমিত হোসেন, সাদাত চৌধুরী প্রমুখ। নিরাশ করেনি ব্রতচারী প্রশিক্ষক, রবীন্দ্রপ্রেমী বিমান তালুকদারও, গাইলেন দু দুটি গান। উদয়ন বড়ুয়া পড়লেন স্বরচিত জোড়া কবিতা।

সভাপতির বক্তব্য শুরু হবে, এমন সময় মিহির মোহন খেয়াল করলেন; আরে, সভাপতি অমিতা বর্দ্ধন তার দিকে কটমট করে তাকিয়ে! মানে বুুঝতেও বাকি রইল না। তাড়াতাড়ি এক ঢিলে দুই পাখি মারলেন মিহির মোহন। সভাপতি তার স্বরচিত কবিতা আর সভাপতির বক্তব্য একসঙ্গে সেরে ফেললেন বটে, এরপরও তিনি মিহির মোহনের দিকে তাকিয়েই থাকলেন! মিহির মোহন বিস্তর বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ। সভাপতির বক্তব্য শেষ হওয়া মাত্র তিনি চা আর গরম গরম ডালপুরি ভক্ষণের প্রস্তাব রাখলেন! মিহির মোহন আজকের মতো বাঁচার ধান্দা করলেও সহসভাপতি হিমেল রায় পারলেন কই? তখন ফটোসেশনও শেষ, আর বেচারা তখন হন্তদন্ত হয়ে এই শীতেও এক কেজি ঘাম ঝরিয়ে হাজির! তার মুখে কোনো শব্দ নেই আর অন্যদিকে মিহির মোহনের মুখে মুচকি হাসি! দেরি না করে বলে ফেললেন, দেরিতে আসার শাস্তিস্বরূপ আজ আমাদের খাওয়াবেন বন্ধু হিমেল রায়! সভাপতি অমিতা বর্দ্ধনের চোখ ফের ছানাবড়া, কী চালাকি! অগত্যা বেশ বড় বহর নিয়ে সহসভাপতি হিমেল রায়ের রেস্টুরেন্ট যাত্রা! ঘোর সন্ধ্যায়ও মিহির মোহনের ধবধবে সাদা মুখখানি তখন আরো উজ্জ্বল!

:: সহসভাপতি, ভোরের কাগজ পাঠক ফোরাম, সিলেট জেলা পরিবার

পাঠক ফোরাম'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj