দক্ষিণ কোরিয়া উদ্বিগ্ন, পদক্ষেপ জোরদার

শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাগজ ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ায় উদ্বেগজনক হারে বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। গত বৃহস্পতিবার ৫৩ জন নতুন আক্রান্তকে শনাক্তের পর শুক্রবার আরো ৫২ জনকে আক্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সবমিলিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫৬ জনে। সাম্প্রতিক এই বাস্তবতাকে ‘জরুরি পরিস্থিতি’ বলে বর্ণনা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী চুং সাই-কিয়ুন। কভিড-১৯ মোকাবিলায় জোরদার করা হয়েছে পদক্ষেপ। চীনের হুবেই প্রদেশে করোনা ভাইরাসে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করলেও বৃহস্পতিবার আরো ১১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দেশটির স্বাস্থ্য কমিশনের নিয়মিত বার্তায় এই তথ্য জানানো হয়েছে। এনিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ২৩৩ জনে পৌঁছেছে। চীনের বাইরে এর হংকং, ফিলিপিন্স, ফ্রান্স এবং জাপানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার পর দেশটির দুই দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর দায়েগু ও চেয়ংদোকে ‘স্পেশাল কেয়ার জোন’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, চীন ও জাপানে আটকা থাকা প্রমোদতরীর পর সবচেয়ে বেশি কভিড-১৯ আক্রান্তের দেশে পরিণত হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। শুক্রবার নতুন করে ধরা পড়া ৫২ জন আক্রান্তের মধ্যে ৪১ জনই দায়েগুর বাসিন্দা। এদের মধ্যে ৩৯ জনই একটি ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সদস্য। বৃহস্পতিবার দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

চীনের ৪ কারাগারে আক্রান্ত পাঁচ

শতাধিক : চীনের চার কারাগারে পাঁচ শতাধিক মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে দুটি কারাগার চীনের হুবেই প্রদেশে আর বাকি দুটি হুবেইয়ের বাইরে অবস্থিত। গত ৩১ ডিসেম্বর হুবেই প্রদেশের উহান শহরেই প্রথমবারের মতো করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। এরপর থেকেই চীনের বিভিন্ন স্থানসহ বিশ্বের অনেক দেশেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। গতকাল শুক্রবার একটি রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হুবেই প্রদেশের একটি মহিলা কারাগারে ২৩০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj