ভারতে এলপিজি সিলিন্ডারের মূল্যবৃদ্ধির নেপথ্যে

মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাগজ ডেস্ক : ভারতের বাজারে প্রতি মাসেই তরলিকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম পুনর্মূল্যায়ন করা হয়। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে জ্বালানি পণ্যটির দাম বাড়ানো কিংবা কমানো হয়। তবে কিছুদিন ধরে ভারতের বাজারে এলপিজির দাম টানা বাড়তির দিকে। এ ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ ১২ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে ভর্তুকিযুক্ত ও ভর্তুকিবিহীন দুই ধরনের এলপিজি সিলিন্ডারের দামই বাড়ানো হয়েছে। বলা হচ্ছে, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি পণ্যের দামের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এলপিজি গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। তবে নভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পর জ্বালানি পণ্যের দাম তুলনামূলক কমে এলেও ভারতে এলপিজি সিলিন্ডারের দামে এর প্রভাব পড়েনি। ভারতে দুই ধরনের এলপিজি সিলিন্ডার পাওয়া যায়। ভর্তুকিযুক্ত ও ভর্তুকিবিহীন। কেন্দ্রীয় সরকারের বিশেষ প্রকল্পের আওতায় বছরজুড়ে প্রতিটি পরিবার ১৪ দশমিক ২ কেজির ১২টি এলপিজি সিলিন্ডার তুলনামূলক কম (ভর্তুকিযুক্ত) দামে কিনতে পারেন।

এর বেশি সিলিন্ডারের প্রয়োজন হলে তুলনামূলক বেশি দামে ভর্তুকিবিহীন এলপিজি সিলিন্ডার কেনার সুযোগ রয়েছে। এ কারণে ভারতে এলপিজি সিলিন্ডারের দুই ধরনের দাম দেখা যায়।

সর্বশেষ মূল্যবৃদ্ধির পর রাজধানী নয়াদিল্লিতে ভর্তুকিবিহীন একেকটি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম দাঁড়িয়েছে ৮৫৮ দশমিক ৫০ রুপি (ভারতীয় মুদ্রা)। এক মাস আগে ভর্তুকিবিহীন একটি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম ছিল ৭১৪ রুপি। সেই হিসাবে দিল্লিতে ভর্তুকিবিহীন একেকটি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে ১৪৪ দশমিক ৫০ রুপি। অন্যদিকে দিল্লির বাজারে ভর্তুকিযুক্ত একেকটি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বেড়ে হয়েছে ২৯১ দশমিক ৪৮ রুপি। আগের মাসে ভর্তুকিবিহীন এলপিজি সিলিন্ডারের দাম ছিল ১৫৩ দশমিক ৮৬ রুপি।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj