বিদ্যুৎ পেল ১ হাজার পরিবার : সাবমেরিন ক্যাবলে স্বপ্ন পূরণ

মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শহিদুজ্জামান খান, শরীয়তপুর থেকে : শরীরয়তপুরের দুর্গম চারাঞ্চলে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পেয়েছে হাজার হাজার মানুষ। জেলার নড়িয়া উপজেলার চরআত্রা, নওপাড়া ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাচিকাটা ইউনিয়নের প্রায় ২০ হাজার পরিবার বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এসেছে। গত শনিবার দুপুরে চরআত্রা আজিজিয়া স্কুল এন্ড কলেজ মাঠ আয়োজিত সুধী সমাবেশ থেকে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম এনামুল হক শামীম এ বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধন করেন।

বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধন ও সুধী সমাবেশে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেন, নদীবেষ্টিত এ চরাঞ্চলে বিদ্যুৎ ছিল অকল্পনীয়। মানুষ স্বপ্নেও ভাবেনি এ নদীর মাঝে বিদ্যুতের আলো জ্বলবে। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশ উন্নত হয়। তার প্রমাণ চরাঞ্চলের মানুষ আজ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে।

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাবেদুর রহমান খোকা শিকদার, সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, সাবেক সচিব ফিরোজ আহমেদ, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) ঢাকা জোনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. জয়নাল আবেদীন, প্রকৌশলী আবুল হাসেম মিয়া, ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর আল নাসীভ, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজি হাসান আলী রাড়ী, সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন, জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল আউয়াল, নওপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাশেদ আজগর সোহেল মুন্সী, সাবেক চেয়ারম্যান জাকির হোসেন মুন্সী, নওপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ জালাল মাঝি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরইবি ঢাকা জোনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জয়নাল আবেদীন জানান, উদ্বোধনের পর পরই এক হাজার পরিবারে বিদ্যুতের আলো জ্বলেছে। এ চরের পুরো এলকায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের জন্য একটি ১০ এমভিএ উপকেন্দ্র, ২০ কিলোমিটার ৩৩ কেভি লাইন, ৪০০ কিলোমিটার ১১ কেভি লাইন নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। কৃষক আলী মিয়া বলেন, জীবনে ভাবিনি এ চরে বিদ্যুতের বাতি দেখে মরতে পারব। উপমন্ত্রী শামীম সাহেবের কারণে আমাদের চরে বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে।

স্থানীয় মুদি দোকানি আজিজুল বলেন, এতবড় পদ্মা নদীর মাঝে বিদ্যুৎ আসবে আমরা কখনো কল্পনা করিনি। আমাদের এলাকায় বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে এটা কিছুতেই বিশ্বাস করতে পারছি না।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj