বিসিএলে শান্তর ডাবল সেঞ্চুরি

সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) অষ্টম আসরের তৃতীয় রাউন্ডে কক্সবাজারের দুটি ভিন্ন ভেন্যুতে চলছে দুটি ম্যাচ। পূর্বাঞ্চলের বিপক্ষে লড়ছে উত্তরাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চলের মুখোমুখি দক্ষিণাঞ্চল। তৃতীয় দিন শেষে শক্ত অবস্থানে আছে পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চল।

কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে তৃতীয় দিন শেষে মধ্যাঞ্চলের বিপক্ষে জয় পেতে ৩৪৮ রানের প্রয়োজন দক্ষিণাঞ্চলের এবং তাদের হাতে আছে ৬টি উইকেট। এর আগে মধ্যাঞ্চলের নাজমুল হোসেন শান্তর ডাবল সেঞ্চুরিতে ৫০৬ রানে এগিয়ে থেকে ইনিংস ঘোষণা করেন অধিনায়ক শুভাগত হোম। এর আগে প্রথম ইনিংসে ২৩৫ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর মধ্যাঞ্চলের বিপক্ষে ৪ উইকেট হারিয়ে ১১৪ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণাঞ্চল। প্রথম ইনিংসের ১২১ রানের সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ৩৮৫ রান যোগ করে মধ্যাঞ্চল। আর তাতেই ৫০৭ রানের জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় দক্ষিণাঞ্চলের সামনে। শান্ত ২৫৩ রানে অপরাজিত রয়েছেন। দুর্দান্ত এ ইনিংসে বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন ২৫টি, ছক্কা মেরেছেন ৯টি, স্ট্রাইক রেট ৮১.৬১। আগের ৪২টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে শান্তর সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল ১৯৪। ৪০.৫০ গড়ে রান ২ হাজার ৬৭৩। ৬ সেঞ্চুরির পাশাপাশি তার ঝুলিতে আছে ১৪ ফিফটি। বাংলাদেশের হয়ে ৩টি টেস্ট খেলা নাজমুল পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে নিজেকে কিছুটা হলেও প্রমাণ দিয়েছেন। সেখানে তিনি ৪৪ আর ৩৮ রান করেছিলেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণাঞ্চলের এনামুল হক বিজয়ের ৮৩, শামসুর রহমানের ৪৪ রানে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান তোলার পর তৃতীয় দিনের খেলা শেষ হয়। আজ চতুর্থ দিনে জয়ের জন্য আবদুর রাজ্জাকের দক্ষিণাঞ্চলের প্রয়োজন ৩৪৮ রান আর শুভাগত হোমের মধ্যাঞ্চলের প্রয়োজন ৬টি উইকেট।

অন্যদিকে কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অপর ম্যাচে পূর্বাঞ্চলের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৪৫ রান করেছে উত্তরাঞ্চল। ক্রিজে আছেন ২৩ রান করা মুশফিকুর রহিম এবং ২২ রান নিয়ে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন। এর আগে প্রথম ইনিংসে ইয়াসির আলীর সেঞ্চুরিতে (১৬৫) ভর করে ৩৩১ রান তুলে অলআউট হয় পূর্বাঞ্চল। দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৬ রানে পিছিয়ে ইমরুল কায়েসরা। উত্তরাঞ্চলের হয়ে ৭ উইকেট নিয়েছেন সানজামুল ইসলাম। তিনি ৫২ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৭ মেডেন ১১৫ রান খরচায় এই ৭ উইকেট শিকার করেন।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj