জানা অজানা : ইয়াটিং

মঙ্গলবার, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বর্তমান বিশ্বে ইয়াটিং একটি অন্যতম প্রতিযোগিতা, যার শাব্দিক অর্থ নৌকা বাইচ। ইয়াট রেসিংয়ে পালতোলা ও ইঞ্জিনচালিত উভয় নৌকাই ব্যবহার করা হয়। ইয়াট শব্দটি ওলন্দাজ শব্দ থেকে এসেছে। যার অর্থ আমোদতরী। গবেষকদের মতে, যখন থেকে মানুষ বাতাসের শক্তি ও গতিবিধি সম্পর্কে বুঝতে শিখেছে, তখন থেকেই পালতোলা আমোদতরী বা ইয়াটিংয়ের ব্যবহারের সূচনা। ১৬৬১ সালে প্রথম এ খেলার প্রচলন দেখা যায়। ক্যাথেরিন ও অ্যানির মধ্যে ১৬৬১ সালে ইংলিশ লেখক জন ইভলাইন একটি ইয়াট রেসিংয়ের আয়োজন করেছিলেন। রেসিংয়ের জন্য তাদের দেয়া হয়েছিল বড় রাজকীয় পালতোলা নৌকা। নৌকা দুটির মধ্যে একটি ছিল ইংল্যান্ডের রাজা দ্বিতীয় চার্লস। প্রতিযোগিতাটি শুরু হয়েছিল গ্রিনউইচ থেকে এবং শেষ হয়েছিল গ্রাভেসেন্দে। পালতোলা নৌকা দিয়ে সতের শতকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ খেলার শুরু হয়েছিল নেদারল্যান্ডসে। ইয়াটিংয়ে ছয়টি ক্লাস থাকে, যথা- সেইলিং ক্লাস, স্টার ক্লাস, ফ্লাইং ডাচম্যান, ৪৭০ ক্লাস, ফিন ক্লাস ও টর্নেডো ক্লাস। প্রত্যেক অংশগ্রহণকারী দেশ প্রতিযোগিতার ক্লাসগুলোতে একটি করে ইয়াট পাঠাতে পারে। ১৯০০ সালে প্যারিস অলিম্পিকে প্রথম ইয়াটিংয়ের অন্তভুক্ত করা হয়। ইয়াটিংয়ের আন্তর্জাতিক আইন-কানুন তৈরি হয় ১৯০৪ সালে। এর তিন বছর পর ১৯০৭ সালে গঠিত হয় আন্তর্জাতিক ইয়াটিং ফেডারেশন। ১৯৭০ সালে এশিয়ান গেমসে ইয়াটিং সংযোজন করা হয়। বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক ইয়াটিংয়ের জন্য হাল্কা ধরনের পালতোলা একই ডিজাইন, আকার-প্রকার ও ওজনের ইয়াট ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj