খুলনায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী : বিমা খাতে আস্থা ফেরাতে হবে

শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : ‘মুজিববর্ষে শপথ করি, ঝুঁকিমুক্ত জীবন গড়ি’ -এ ¯েøাগানকে সামনে রেখে খুলনায় ২ দিনব্যাপী বিমা মেলা শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে এ মেলার উদ্বোধন করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

এ সময় তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিমা পরিবারের একজন সদস্য ছিলেন। সরকার বিমার উন্নয়ন ও বিমাকে সেবামুখী করতে বিমা নীতি-২০১৪ প্রণয়ন করেছে। এ ছাড়া বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ গঠন এবং ১ মার্চকে জাতীয় বিমা দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে।

স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে বিমা খাতে মানুষের আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে উল্লেখ করে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিমা একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান হলেও সেবা দেয়াই বিমার অন্যতম কাজ। তাই বিমার সুযোগ-সুবিধা ও নিয়মনীতিগুলো পরিষ্কারভাবে মানুষকে জানিয়ে তবেই গ্রাহক করতে হবে। পরে প্রতিমন্ত্রী বিভিন্ন বিমা কোম্পানির বিমা দাবির চেক গ্রাহকদের মধ্যে হস্তান্তর এবং বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।

বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা দেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. হুমায়ুন কবির, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এসএম ফজলুর রহমান, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সভাপতি বিএম ইউসুফ আলী, বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের সদস্য ড. এম মোশাররফ হোসেন ও বোরহান উদ্দিন আহমেদ। স্বাগত জানান বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের সদস্য গকুল চাঁদ দাস।

বিমা মেলায় রাষ্ট্র মালিকানাধীন দুটি করপোরেশন এবং ৩১টি লাইফ ও ৪৫টি নন লাইফ বিমা কোম্পানির ৭৮টি স্টল রয়েছে। মেলা প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর ছোঁয়া লাগানো হয়েছে বিমা মেলার প্রতিটি স্টলে। প্রধান ফটক থেকে শুরু করে স্টলগুলোর ব্যানার, ফেস্টুনে শোভা পায় মুজিব শতবর্ষের লোগো। যা অন্যবারের মেলা থেকে এবারের মেলাকে ভিন্নতা এনে দিয়েছে। মেলায় আসা দর্শনার্থীদের কাছে বাড়তি কৌত‚হল ও আগ্রহ তৈরি করেছে বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষের লোগো।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj