এমআরপির মেয়াদ শেষ হলেই মিলবে ই-পাসপোর্ট

শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০

আছাদুজ্জামান : মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত ই-পাসপোর্ট পাচ্ছেন না মেশিন রিডেবল পাসপোর্টধারীরা (এমআরপি)। তবে নতুন আবেদনকারীরা ই-পাসপোর্টের আওতাধীন হবেন এখন থেকেই। এ ছাড়া প্রবাসী কর্মীদের ও শিক্ষার্থীদের জন্য অপেক্ষাকৃত কম টাকায় পাসপোর্ট করার সুযোগ দেয়া হচ্ছে। পাসপোর্ট অধিদপ্তর সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।

ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর জানিয়েছে, বর্তমানে ৬ মাসের বেশি মেয়াদ থাকা মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট বা এমআরপি পাসপোর্ট যাদের আছে তাদের ই-পাসপোর্ট দেয়া হবে না। মেয়াদোত্তীর্ণ অথবা নতুন করে আবেদনকারীদের দেয়া হবে ই-পাসপোর্ট। সূত্র জানায়, ই-পাসপোর্ট ব্যবহার করতে সারাদেশে বিভিন্ন স্থল, নৌ ও বিমানবন্দরে মোট ৫০টি ‘ই-গেট’ স্থাপন করা হবে। এর মধ্যে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ২৬টি, চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৮টি, সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৮টি, বেনাপোল স্থলবন্দরে ৪টি, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ৪টি ই-গেট স্থাপন করা হবে।

প্রাথমিকভাবে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৯টি ই-গেট চালু করা হচ্ছে। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাকিল আহমেদ বলেন, ই-পাসপোর্টে একজন ব্যক্তির বায়োমেট্রিক ও বায়োগ্রাফিক ৪১টি তথ্য থাকবে। এর মধ্যে ২৬টি তথ্য খালি চোখে দেখা যাবে। ২টি বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা আছে, যা বিশেষ যন্ত্র ছাড়া পাঠ করা যাবে না। এর ফলে সারা বিশ্বে বাংলাদেশের পাসপোর্টের গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশের ই-পাসপোর্টের কী কী বৈশিষ্ট্য রয়েছে, তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। সারাবিশ্বের বিমানবন্দরগুলোতেও জানানো হয়েছে। তাদের মেম্বারশিপও নিয়েছি। বিশ্বের যত দেশের বন্দরে ই-গেট আছে, সেখানেই আমাদের ই-পাসপোর্ট ব্যবহার করা যাবে। যদি ই-গেট নাও থাকে তাহলে সাধারণভাবেও ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করা যাবে। পাসপোর্টের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে মেজর জেনারেল সাকিল আহমেদ বলেন, এমআরপি পাসপোর্ট থেকে ই-পাসপোর্টে নিরাপত্তা বেশি। পাসপোর্ট একটি জাতীয় দলিল। এ ছাড়া সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ দমনে ই-পাসপোর্ট ভূমিকা রাখবে। একজন ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতে যা যা তথ্য দরকার সবই থাকবে এই পাসপোর্টে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj