অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল : সঞ্চয়পত্রের বিক্রি কমায় সরকারের ঋণ বেড়েছে

শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহের ধীরগতি দেশের অর্থনীতির ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে না। সরকারি মেগা প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়িত হলে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাবে এবং বেসরকারি ঋণ প্রবাহে গতি সঞ্চার হবে। সঞ্চয়পত্র বিক্রির ক্ষেত্রে সরকারের সংস্কার কার্যক্রমের ফলে তার বিক্রি কমে গেছে। এর ফলে ব্যাংক ব্যবস্থা হতে সরকারের ঋণ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা বেড়েছে। এ প্রান্তিকে রাজস্ব আয় কমেছে। তিনি জানিয়েছেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১১ কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রথম প্রান্তিকে আদায় হয়েছে ৫৫ হাজার ৪৯৩ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের চেয়ে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ কম।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) প্রতিবেদন সংসদে উপস্থাপন করে এসব কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী প্রথম প্রান্তিক পর্যন্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি ও আয়-ব্যয়ের গতিধারা এবং সামষ্টিক অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ সংক্রান্ত প্রতিবেদনটি সংসদে উত্থাপন করেন। প্রতিবেদনে ঋণ প্রবাহ সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, মুদ্রার প্রবৃদ্ধি ২.১২ মতাংশ কম হয়েছে। সরকারি ঋণ প্রবাহ বেড়েছে। বেসরকারি ঋণ প্রবাহ কমেছে। প্রতিবেদনে ব্যাংকের সুদহার প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে আমানত ও ঋণের সুদের হার কিছুটা বেড়েছে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে আমানতের সুদহার ছিল ৫.২৭ শতাংশ। গত বছর তা বেড়ে হয়েছে ৫.৬৫ শতাংশ।

একই সময়ে ঋণের সুদের হার ৯.৫৪ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ৯.৫৬ শতাংশ। সরকারি ব্যাংক ঋণের সুদের হার কম থাকলেও বেসরকারি ব্যাংক ও বিদেশি ব্যাংকের সুদের হার বৃদ্ধির কারণে সামগ্রিকভাবে ব্যাংক খাতে ঋণের সুদের হার বেড়েছে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj