বাণিজ্যমেলার কেনাকাটায় সহজে ব্যাংকিং সুবিধা

শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : মেলা মানেই কেনাবেচার ধুম। টাকার লেনদেন। আর বাণিজ্যমেলা হলে তো কথাই নেই। এক জায়াগায় দেশের নামিদামি ব্র্যান্ডের পাশাপাশি বিশে^র অন্যান্য দেশের পণ্য কেনাবেচার স্থান। বাণিজ্যমেলায় ক্রেতা কিংবা বিক্রেতা- সবার জন্যই নগদ লেনদেনের ঝুঁকি থাকে সবসময়। এ জন্যই ঝুঁঁকি কমাতে এবারও বাণিজ্যমেলায় রয়েছে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ও বেসরকারি পাঁচটি ব্যাংকের এটিএম (অটোমেটেড টেলার মেশিন)। এগুলো হলো রাষ্ট্রমালিকানাধীন সোনালী, জনতা এবং বেসরকারি ডাচ্-বাংলা, ইসলামী ও মধুমতি ব্যাংক। ক্রেতা-বিক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে টাকা জমা ও উত্তোলনের আয়োজন রয়েছে ব্যাংকগুলোতে। সহজ ও নিরাপদে আর্থিক লেনদেনের পাশাপাশি দেয়া হচ্ছে এটিএম বুথ ও মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা। একই সঙ্গে ব্যাংক হিসাবও খুলতে পারছেন ক্রেতা-দর্শনার্থী। মেলার স্টল মালিকদের জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। সারাদিনের বেচাকেনার অর্থ সহজেই জমা দেয়ার সুযোগ রয়েছে। একাধিক ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, এ মেলা আন্তর্জাতিকমানের হওয়ায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে এ ধরনের ব্যাংকিং সেবা দেয়া হচ্ছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এই সেবা দেয়া হয়। পাশাপাশি এটিএম বুথের মাধ্যমে নগদ টাকাও তুলতে পারছেন মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। বিভিন্ন আমানত ও ঋণ প্রকল্প সম্পর্কে তথ্য জানার জন্য উৎসাহী দর্শনার্থীদের ভিড় দেখা যায় প্যাভিলিয়নে। মেলা প্রাঙ্গণে দেখা গেছে, সরকারি ও বেসরকারি পাঁচটি ব্যাংক তাদের নিজস্ব প্যাভিলিয়ন ও এটিএম বুথ স্থাপন করেছে। ফলে মেলায় আগত দর্শনার্থী, ক্রেতা ও বিভিন্ন স্টল-প্যাভিলিয়নের মালিকরা সহজ ও নিরাপদে লেনদেন, নতুন হিসাব খোলা, বিভিন্ন আমানত ও ঋণ প্রকল্প সম্পর্কে তথ্য জানতে পারছেন। আবার স্টল মালিকরা সারাদিনের বেচাকেনার অর্থ সহজেই জমা দেয়ার সুযোগও পাচ্ছেন। মূল প্রবেশদ্বার পার হয়ে বাঁ-দিকে চোখে পড়বে সৌন্দর্যপূর্ণ ইসলামী ব্যাংকে নান্দনিক প্যাভিলিয়ন। দেশের সার্বিক উন্নয়ন-অগ্রগতির প্রতিচ্ছবি অর্থাৎ বিনিয়োগোত্তর উন্নয়নের বিভিন্ন চিত্র ফুটিয়ে তোলা হয়েছে প্যাভিলিয়নটিতে। বাণিজ্যমেলায় প্রথমবারের মতো প্যাভিলিয়ন দিয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। গ্রাহকদের নতুন হিসাব খোলা, বিভিন্ন আমানত জমা ও ঋণ গ্রহণ সম্পর্কিত বিভিন্নি সেবা ও পরামর্শ দিচ্ছে তারা। প্যাভিলিয়ন ইনচার্জ মো. বেলাল হোসেন জানালেন, আমাদের নতুন সংযোজন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ‘এফএসআইবিএল ক্লাউড’-এর সেবা সম্পর্কে জানানো হচ্ছে গ্রাহকদের।’

মেলায় আসা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী রবিউল ইসলাম বলেন, আগারগাঁও এসেছিলাম একটা কাজে। তাই মেলায় ঘুরতে এলাম। কিছু পণ্য পছন্দ হয়েছে কিনতে নগদ টাকার প্রয়োজন। ইসলামী ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তুললাম। মেলায় এটিএম বুথ থাকায় ভালো হয়েছে সহজে টাকা উত্তোলন করতে পারলাম। ভালোই লাগছে।

মেলায় জনতা ব্যাংকের কর্মকর্তা জানান, গত বছরের মতো এবারো আমরা মেলায় অংশ নিয়েছি।

এখানে টাকা জমা ও উত্তোলনসহ বিভিন্ন ব্যাংকিংসেবা দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া এটিএমের সেবা রয়েছে। যতদিন যাচ্ছে মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা বাড়ছে। ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj