শেষ সময়ে বেচা বিক্রি বাড়ছে বাণিজ্যমেলায়

বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : ঢাকা আর্ন্তজাতিক বাণিজ্যমেলার বিদায়ের সুর বাজছে। তাই শেষ সময়ে বেচা-বিক্রি আগের তুলনায় অনেকটা বাড়ছে। কার্যদিবসে আগের তুলনায় ক্রেতা-দর্শনার্থীর সমাগম বাড়ছে। এ কারণে বেচা-বিক্রিও আগের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। তবে দিনের বেলায় অনেকটা অলস সময় পার করেন দোকানিরা। কিন্তু বিকেলে বাড়তে থাকে ক্রেতা সমাগম। আর সন্ধ্যায় ব্যস্ততা বাড়ে দোকানিদের। গতকাল মঙ্গলবার বাণিজ্যমেলা ঘুরে এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, বাণিজ্যমেলার থ্রিপিস বিক্রেতারা বিভিন্ন অফার নিয়ে এসেছেন। এর মধ্যে গোল্ডেন অফার নাম দিয়ে একাধিক প্রতিষ্ঠান মাত্র ৬শ টাকায় তিন সেট থ্রিপিস বিক্রি করছে। এর পাশাপাশি একশ টাকা, ১২শ টাকা ও দেড় হাজার টাকার অফারেও তিন সেট থ্রিপিস বিক্রি করা হচ্ছে। তিন সেট থ্রিপিস ৬শ টাকায় বিক্রি করছে এমন একটি প্রতিষ্ঠান ‘রং বেরং টেক্সটাইল’। মেলার ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করে একটু সামনে এগিয়ে গেলেই পোশাকের এই স্টলটির দেখা মিলবে। স্টলটিতে গোল্ডেন অফার লিখে একাধিক পোস্টার ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে তিন সেট থ্রিপিস ৬শ টাকা, এক সেট থ্রিপিস ২৫০ টাকা ও ৩৫০ টাকা। এমন আরো অনেক স্টল রয়েছে, যারা বিভিন্ন নামের অফারের ক্রেতাদের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করছেন। বিক্রেতারা বলছেন, আমরা বার্মিজ থ্রিপিস তিন সেট একসঙ্গে ৬শ টাকায় বিক্রি করছি। এ ছাড়া ক্রেতারা চাইলে এক পিস করেও কিনতে পারবেন। এর জন্য প্রতিটির দাম দিতে হবে ২৫০ টাকা। আবার ৩৫০ টাকা দামের থ্রিপিসও আছে আমাদের কাছে। এর বাইরে দামি থ্রিপিসও বিক্রি করছি আমরা। ১ হাজার ৬০০ টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা দামের থ্রিপিস আছে আমাদের কাছে।

তারা বলছেন, এবার বিক্রি ভালো নয়। বেশিরভাগ সময় আমরা বসে, গল্প করে সময় কাটাই। তবে দুয়েকদিন ধরে মোটামুটি ভালো দর্শনার্থী আসছেন। দর্শনার্থীরা কিনুক বা না কিনুক ঘুরে ঘুরে দেখছেন। কেউ কেউ দামাদামি করছেন। আবার কেউ পরে এসে নেবেন এমন কথাও বলছেন।

মেলা প্রাঙ্গণে কথা হয় একাধিক নারী দর্শনার্থীর সঙ্গে। তারা বলছেন, ৬০০ টাকায় তিন সেটের যে থ্রিপিস বিক্রি করা হচ্ছে তা নি¤œমানের। এসব থ্রিপিস বাসায় ব্যবহার করার জন্য। আমার ধারণা বাসায় ব্যবহার করার জন্য এসব থ্রিপিস কেনা যায়। বাইরে এত কম দামে ব্যবহারের থ্রিপিস পাওয়ার কথা না।

মেলার পেছনের গেটের কাছেই রয়েছে একাধিক বেøজারের স্টল। তারা নানা অফারে ক্রেতাদের মনোযোগ আর্কষণে ব্যস্ত। দোকানভেদে কয়েকদিন আগে ১৮শ টাকায় বিক্রি করা বেøজারের দাম প্রায় ১০০ থেকে ২০০ টাকা কমেছে। জানতে চাইলে দোকানিরা বলেন, শীত কমে যাচ্ছে। এ ছাড়া মেলাও শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে, তাই আমরা অফার দিচ্ছি। অনেক ক্ষেত্রে দাম কমিয়ে দিয়েছি বলেও জানান তারা।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj