বিপিএলে দেশিদের দাপট

মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০

এবার বঙ্গবন্ধু বিপিএল টুর্নামেন্টে বেশ দাপটেই খেলেছে দেশি তারকা ক্রিকেটাররা। গত ১৭ জানুয়ারি পর্দা নেমেছে বিপিএলের সপ্তম আসরের। এবার ফাইনালে খুলনা টাইগার্সকে ২১ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাজশাহী। যাইহোক দেশি-বিদেশি ক্রিকেটার নিয়ে ঠাসা চমৎকার একটি টুর্নামেন্ট উপোভোগ করেছে দর্শকরা। তবে মজার বিষয় হলো এবার ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই দেশি ক্রিকেটারদের দাপট একটু বেশি ছিল। ব্যাট হাতে ১০ জন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৭ আছেন বাংলাদেশি এবং ৩ বিদেশি ক্রিকেটার। দেশি খেলোয়াড়রা হলেন- মুশফিক, লিটন, ইমরুল, তামিম, আফিফ, নাইম ও মিঠুন। আর বিদেশিরা হলেন- রাইলি রুশো, শোয়েব মালিক ও ডেভিড মালান। এ ছাড়া সর্বোচ্চ ১০ জন উইকেট শিকারির তালিকায় ৫ আছেন বাংলাদেশি বোলার।

এবার সপ্তম আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় শীর্ষে আছেন রাইলি রুশো। তিনি ১৪ ম্যাচে ৪৫.০০ গড়ে ৪৯৫ রান করেছেন। এর পরেই আছেন মুশফিক। তবে এবার রুশোকে টপকে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়ার সুযোগ ছিল মুশির। ১৭ জানুয়ারি ফাইনালে রাজশাহী রয়্যালসের বিপক্ষে ২৫ রান করলেই তিনি ছাড়িয়ে যেতে পারতেন রুশোকে। কিন্তু মুশফিক আউট হয়েছেন ২১ রান করে। ১৪ ম্যাচে ৪ ফিফটিতে ৭০.১৪ গড়ে তার সংগ্রহ ৪৯১ রান। রুশোর থেকে ৪ রান কম।

তালিকায় তৃতীয় স্থানে আছেন হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান লিটন দাস। তিনি ১৫ ম্যচে ৪৫৫ রান করছেন। শোয়েব মালিক ১৫ ম্যাচে ৪৫৫ রান তুলে আছেন চারে। পাঁচে আছেন ডেভিড মালান। তিনি ১১ ম্যাচে ৪৪৪ রান করেছেন। তালিকায় ৬ নম্বরে আছেন ইমরুল ১২ ম্যাচে ৪৪২ রান। ৭ নম্বরে তামিম ১২ ম্যাচে ৩৯৬ রান। অষ্টম স্থানে আফিফ ১৫ ম্যাচে ৩৭০ রান। নয় নম্বরে নাইম ১২ ম্যাচে ৩৫৯ ও দশে মিঠুন ১২ ম্যাচে করেছেন ৩৪৯ রান।

এবার বিপিএলের সপ্তম আসরের শুরুটা দুর্দান্ত না হলেও শেষদিকে নিজেকে প্রমাণ করেছেন বাঁহাতি টাইগার পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। বুঝিয়ে দিয়েছেন এত জলদি ফুরিয়ে যাওয়ার পাত্র নন তিনি। ফাইনালের মঞ্চে না গেলেও কার্টার মাস্টার ছিলেন আলোচনায়। তার দল রংপুর রেঞ্জার্স গ্রুপ পর্ব পেরুতে পারেনি। তবে ১২ ম্যাচে এ পেসার পেয়েছেন ২০ উইকেট। সমান সংখ্যক উইকেট মোহাম্মদ আমির, রুবেল হোসেন ও রবি ফ্রাইলিঙ্কের। কিন্তু ইকোনমি রেট ও রান বেশি খরচ করায় তারা তিনজন মোস্তাফিজের থেকে পিছিয়ে পড়েন। ১২ ম্যাচে ৪৪.৩ ওভারে ৩১২ রানে ২০ উইকেট শিকার করেছেন কার্টার মাস্টার। তার সেরা বোলিং ১০ রানে ৩ উইকেট (গড় ১৫.৬০)। দ্বিতীয় স্থানে মোহাম্মদ আমির সেরা বোলিং ১৭ রানে ৬ উইকেট (গড় ১৭.৭৫)। তিন নম্বরে রুবেল হোসেন সেরা বোলিং ১৭ রানে ৩ উইকেট (গড় ১৭.৮৫)। চতুর্থ রবি ফ্রাইলিং সেরা বোলিং ১৬ রানে ৫ উইকেট (গড় ১৯.৬০)। পঞ্চম স্থানে আছেন শহীদুল ১৩ ম্যাচে ১৯টি, ষষ্ঠ স্থানে মেহেদি হাসান রানা ১০ ম্যাচে ১৮, সাত নম্বরে মুজিব ১২ ম্যাচে ১৬ অষ্টম স্থানে লুইস ১১ ম্যাচে ১৫, নয় নম্বরে ইরফান ১২ ম্যাচে ১৪ ও দশম স্থানে ইবাদত ১২ ম্যাচে ১৪ উইকেট শিকার করেন।

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj