ওবায়দুল কাদের : নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করা বিএনপির উদ্দেশ্য

সোমবার, ২০ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকার ২ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে বিএনপির অংশ নেয়া লোক দেখানো। জয় তাদের লক্ষ্য নয়, লক্ষ্য নির্বাচনকে বিতর্কিত করা। কখনো সরকার, কখনো কমিশন, কখনো ইভিএমকে বিতর্কিত করা। গতকাল রবিবার বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত দিতে যখন আমরা মিয়ানমারের সঙ্গে কথা বলছি তখন চীন সেখানে বিনিয়োগ করতে গেছে। এতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কোনো জটিলতার সৃষ্টি হবে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, চীনের সঙ্গে মিয়ানমারের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক রয়েছে, সেই অনুযায়ী তাদের বিনিয়োগও রয়েছে। এখানে আমাদের কোনো স্বার্থহানি দেখছি না। যদি কোথাও আমাদের স্বার্থহানি ঘটে, অবশ্যই তা নিয়ে আমরা কথা বলব। তবে চীনের প্রেসিডেন্ট কী কারণে মিয়ানমারে গেছেন এবং সেখানে কী করছেন, সেই বিষয়ে আমরা তত বেশি অবগত নই। আমরা আশাহত নই, আমরা আশা ছাড়ছিও না।এর আগে সচিবালয়ে থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎ শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি জানান, থাইল্যান্ডের অর্থায়নে আমাদের সঙ্গে দুটি প্রকল্প চলমান রয়েছে। একটি হলো এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, আরেকটি এমআরটি লেন সিক্সের প্যাকেজ। তাদের সঙ্গে আমাদের চলমান প্রকল্পের তহবিল তৈরি হওয়া জটিলতা কেটেছে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন আর কোনো ঝামেলা নেই। তাদের একটি টিম আগামী সপ্তাহে আসবে। যদি কোনো সমস্যা থেকেও থাকে, তা সমাধান হয়ে যাবে। আমি থাইল্যান্ডকে বলেছি, সব প্যাকেজের কাজ যেন একসঙ্গে শেষ হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজ (রবিবার) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পগুলো নিয়ে একটি বৈঠক ছিল। সেখানে আমি ছিলাম। বৈঠকে পদ্মা সেতু, বঙ্গবন্ধু টানেল, মাতারবাড়ী প্রকল্প, পায়রা, রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের বিষয়ে কথা হয়েছে। এই মুহূর্তে এগুলোর কাজের গতি ভালো। পদ্মা সেতুর অগ্রগতি তো অবিশ্বাস্য। প্রতিমাসে ৩টি করে স্প্যান বসছে। আগামী বছরের জুলাই-আগস্টের মধ্যেই কাজ শেষ করব। শেষ করতে এখন আর কোনো বাধা নেই।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj