আলোচনায় থাকবে কয়েকটি ল্যাপটপ

রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০

বাসা কিংবা অফিস ল্যাপটপ এখন মানুষের নিত্যসঙ্গী। ব্যক্তিগত ও দাপ্তরিক কাজ সম্পাদন, গান শোনা, সিনেমা দেখা, তথ্য ও ছবি সংরক্ষণসহ নানা কারণে প্রতিনিয়ত ল্যাপটপ ব্যবহার করতে হয়। যদিও স্মার্টফোনের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে ল্যাপটপের ব্যবহার অনেকটা সীমিত করেছে।

এর পরও প্রযুক্তি পণ্যটির আবেদন কমেনি। বিশেষত, দাপ্তরিক কাজে এখনো ল্যাপটপের জায়গা নিতে পারেনি স্মার্টফোন।

ম্যাকবুক প্রো (১৬ ইঞ্চি) : অ্যাপলের এ ফ্ল্যাগশিপ পণ্য বছরজুড়ে আগ্রহের কেন্দ্রে থাকবে ১৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের জন্য। এতে রয়েছে ইন্টেল কোর আই৯ প্রসেসর। গত বছর বাজারে আসা ম্যাকবুক প্রোতে আরো রয়েছে ৩২ গিগাবাইট র‌্যাম ও ৫১২ গিগাবাইট স্টোরেজ। প্রয়োজন হলে ম্যাকবুক প্রোর র‌্যাম ৬৪ গিগাবাইট ও মেমোরি ৮ টেরাবাইট পর্যন্ত বাড়িয়ে নেয়া যাবে। একবার চার্জ পূর্ণ করে ল্যাপটপটি ১১ ঘণ্টা টানা ব্যবহার করা যাবে। ম্যাকবুক প্রোর ম্যাজিক কিবোর্ড ব্যবহারকারীদের মনোযোগ কেড়েছে। ডিভাইসটির দাম ২ হাজার ৫৪৯ ডলার।

এসার অ্যাস্পায়ার ৫ : ইন্টেল কোর আই৩ প্রসেসরের এ ল্যাপটপের র‌্যাম ৪ গিগাবাইট, মেমোরি ১২৮ গিগাবাইট। ডিসপ্লের আকার ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি। রয়েছে ইন্টেল ইউএইচডি গ্রাফিকস ৬২০। ওজন মাত্র ৩ দশমিক ৮ পাউন্ড। উজ্জ্বল ডিসপ্লে, দীর্ঘসময় ধরে ব্যাটারির সক্ষমতা, উন্নত গ্রাফিকস চিপসহ বিভিন্ন কারণে চলতি বছরজুড়ে ল্যাপটপটি ক্রেতাদের মনোযোগ কাড়বে। অনলাইন প্লাটফর্ম অ্যামাজনে একেকটি এসার অ্যাম্পায়ার ৫ ল্যাপটপের দাম ৩৭৯ ডলার ৯৯ সেন্ট।

ডেল এক্সপিএস ১৩ : বাজারে এসেছে ডেল এক্সপিএস ১৩ ল্যাপটপের নতুন সংস্করণ। ডিভাইসটির ভিত্তিমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৯৯৯ ডলার। তবে সংস্করণ অনুযায়ী ডিভাইসটি ক্রয়ে আরো বেশি মূল্য পরিশোধ করতে হবে। এন্ট্রি-লেভেলের এক্সপিএস ১৩ ল্যাপটপে ইন্টেল

কোর-আই৩ ১০০৫জি১ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। ডিভাইসটির ৪ গিগাবাইট র‌্যাম সংস্করণে ২৫৬ গিগাবাইট সলিড স্টেট ড্রাইভ রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, এক্সপিএস ১৩ ল্যাপটপের চলতি বছরের সবচেয়ে উন্নত সংস্করণটির জন্য ক্রেতাদের ভিত্তিমূল্যের চেয়ে কমপক্ষে ২০০ ডলার বেশি গুনতে হবে। ডেল এক্সপিএস ১৩ (২০২০) দেখতে আকর্ষণীয় আল্ট্রা-বুক ডিভাইস হওয়ায় ক্রেতারা বেশ পছন্দ করেছেন।

এসার সুইফট ৭ : এসার সুইফট ৭ মডেলের ল্যাপটপটির স্ক্রিনের মাপ ১৪ ইঞ্চি। এতে রয়েছে ইন্টেল কোর

আই৭-৭ওয়াই৭৫ প্রসেসর ও ইন্টেল ইউএইচডি গ্রাফিকস ৬১৫। ল্যাপটপটিতে ৮ গিগাবাইট র্যাম ও ২৫৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি ব্যবহার করা হয়েছে। ওজন সাকল্যে ২ দশমিক ৬ পাউন্ড। একবার চার্জ পূর্ণ করলে অনায়াসে

১০-১১ ঘণ্টা ব্যবহার করা যায়। হালকা ওজন ও দীর্ঘক্ষণ চার্জ ধরে রাখার সক্ষমতা এ ল্যাপটপকে জনপ্রিয়তা দিয়েছে। ডিভাইসটির ভিত্তিমূল্য ১ হাজার ৬১৩ ডলার।

এইচপি স্পেকট্রি এক্স৩৬০ : ইন্টেল কোর আই-৭১০৬৫ জি৭ প্রসেসর ও ইন্টেল আইরিস প্লাস গ্রাফিকস যুক্ত এইচপির স্পেকট্রি এক্স৩৬০ ল্যাপটপটি বছরজুড়ে ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। এতে রয়েছে ৮ গিগাবাইট র‌্যাম এবং ৫১২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি ব্যবহার করা হয়েছে। ওজন সাকল্যে ২ দশমিক ৮ পাউন্ড। ডিসপ্লের মাপ ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি। এইচপির দশম প্রজন্মের প্রসেসরযুক্ত এ ল্যাপটপের ভিত্তিমূল্য ১ হাজার ২৭০ ডলার।

লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ কার্বন : লেনোভোর এ ল্যাপটপ মূলত বিজনেস ডিভাইস। ব্যবসায়ীদের কাছে ল্যাপটপটির চাহিদা বেশি। লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ কার্বন মডেলের ল্যাপটপে ইন্টেল কোর৫-৮২৬৫ইউ প্রসেসর ও ইন্টেল ইউএইচডি ৬২০ গ্রাফিকস ব্যবহার করা হয়েছে। এর ডিসপ্লের মাপ ১৪ ইঞ্চি। রয়েছে ৪কে ডিসপ্লে সুবিধা। ওজন ২.১ পাউন্ড। লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ কার্বন মডেলের ল্যাপটপের মূল্য ১ হাজার ৩১৪ ডলার।

স্যামসাং ক্রোমবুক ৩ : ক্রোমবুক ৩ মডেলের ল্যাপটপটি শিশুদের উপযোগী করে বানিয়েছে দক্ষিণ কোরীয় জায়ান্ট স্যামসাং। এ ল্যাপটপ ব্যবহার করে শিশুরা ইন্টারনেটে খেলাধুলা করবে, পড়াশোনা করবে এটাই ছিল উদ্দেশ্য। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেল সেলেরন এন৩০৬০ প্রসেসর। রয়েছে ইন্টেল ইউএইচডি ৬২০ গ্রাফিকস। এর ডিসপ্লের মাপ ১১ দশমিক ৬ ইঞ্চি। ওজন ২ দশমিক ৫ পাউন্ড। এতে রয়েছে ৪ গিগাবাইট র‌্যাম ও ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরি।

ডেল এক্সপিএস ১৫ : আলোচনায় থাকা ল্যাপটপের সম্ভাব্য তালিকায় রয়েছে ডেলের এক্সপিএস ১৫ ডিভাইসটি। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেল কোর আই-৯-৯৯৮০এইচকে প্রসেসর। রয়েছে ইন্টেল ইউএইচডি ৬৩০ গ্রাফিকস। এর ডিসপ্লের মাপ ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি। ওজন ৪ দশমিক ৫ পাউন্ড। ডিভাইসটিতে রয়েছে ৩২ গিগাবাইট র‌্যাম ও ১ টেরাবাইট মেমোরি। ডেল এক্সপিএস ১৫ ল্যাপটপটির মূল্য ধরা হয়েছে ১ হাজার ২৯৯ ডলার।

:: ডটনেট ডেস্ক

ডট নেট'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj