বাণিজ্যমেলায় এবার নতুন রূপে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন

বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারি ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : বাণিজ্যমেলায় এবার নতুন রূপে সাজানো হয়েছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা। মেলার প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করলেই চোখে পড়ে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। কয়েক বছর ধরেই মেলায় আসা দর্শনার্থীদের বিশেষভাবে আকর্ষণ করছে এই প্যাভিলিয়নটি। তবে আগের বছরের তুলনায় এবার কিছুটা ব্যতিক্রমভাবে তুলে ধরা হয়েছে প্যাভিলিয়নটি।

নতুন রূপে নতুন সাজে আসা প্যাভিলিয়নটিতে এবার রাখা হয়েছে প্রবেশ ও বাহির হওয়ার জন্য দুটি পথ। প্যাভিলিয়নটিতে প্রবেশ ও বাহির হওয়ার দুটি পথের মাঝে বড় করে লেখা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন’। লেখার নিচেই আছে বঙ্গবন্ধুর তর্জনী উঁচু করা সেই বিখ্যাত ছবির ভাস্কর্য। প্রবেশ গেটের সঙ্গেই ব্যবহার করা হয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) লোগো। প্যাভিলিয়নের দুই গেটের পাশে স্থাপন করা হয়েছে ফুলের বাগান। তবে গত কয়েক বছর ধরে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নের সামনে শোভা পাওয়া লেক এবং সেই লেকে ভেসে বেড়ানো নৌকার দৃশ্য এবার রাখা হয়নি। আগে যেখানে লেক ছিল, এবার সেই স্থানটি ফাঁকা রাখা হয়েছে।

মেলায় ঘুরতে আসা নিলুফা আকতার জানান, বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নের আকার গত বছরের তুলনায় বড় মনে হচ্ছে। কিন্তু ভেতর দেখে আগের মতোই লাগছে। বাইরে থেকে প্যাভিলিয়ন দেখে ভালোই লাগছে। তবে প্যাভিলিয়নের পাশে থাকা লেক ও ভেসে বেড়ানো নৌকার দৃশ্যটি না রাখায় আমার কাছে খারাপ লাগছে। তিনি বলেন, গত বছর এই প্যাভিলিয়নের সামনে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য রাখা হয়নি। এবার বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ফিরিয়ে আনা হলেও লেক ও লেকে ভেসে বেড়ানো নৌকার দৃশ্য সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের সঙ্গে ভেসে বেড়ানো নৌকার দৃশ্য থাকলে প্যাভিলিয়নের সৌন্দর্য আরো বাড়ত।

তবে মেলার আয়োজক ইপিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে এবার বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন নতুন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে। ভারত উপমহাদেশ বিভাজনের পর ১৯৫২-এর ভাষা আন্দোলন, পশ্চিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আন্দোলন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্ব প্রদান এবং সর্বোপরি যুদ্ধ-বিধ্বস্ত বাংলাদেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ পরিচালনার বিষয়ে সঠিক ধারণা প্রদান এবং দেশ পরিচালনার বিষয়ে সঠিক ধারণা প্রদানের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন নির্মাণ করা হয়েছে।

ইপিবি বলছে, বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নের আকার আগের তুলনায় বাড়ানো হয়েছে। এবারের বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন অন্যান্য বারের তুলনায় অধিকতর সুন্দর, নান্দনিক ও ভাবগাম্ভীর্যভাবে তৈরি করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নের ভেতরে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মভিত্তিক বিভিন্ন আলোকচিত্র প্রদর্শন করা হবে।

উল্লেখ্য, ২১ দেশের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের বাণিজ্যমেলা। দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৪৮৩টি প্যাভিলিয়ন ও স্টল রয়েছে।

মেলায় প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন রয়েছে ৬৪টি। এছাড়া সাধারণ প্যাভিলিয়ন ১৩টি, সাধারণ মিনি প্যাভিলিয়ন ৫৯টি, প্রিমিয়াম মিনি প্যাভিলিয়ন ৪২টি। প্রতিদিন দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের জন্য সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। এবার মেলার প্রবেশ ফি বেড়েছে। প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ১০ টাকা বাড়িয়ে টিকেটের মূল্য ধরা হয়েছে ৪০ টাকা। আর অপ্রাপ্ত বয়স্কদের টিকেটের দাম আগের মতো ২০ টাকা।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj