আয়ে সেরা লিওনেল মেসি

মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯

বিশ্ব ফুটবলে এ মুহূর্তে জনপ্রিয় ফুটবলার হলেন আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসি। যুক্তরাষ্ট্রের বিজনেস সাময়িকী ফোর্বস তিন দশক ধরে বিশ্বব্যাপী অ্যাথলিটদের আয়ের খোঁজখবর রাখছে। তাদের হিসাব মতে, ১৯৯০ সালের পর এখন পর্যন্ত মোট সাতজন অ্যাথলিট শীর্ষস্থানে ওঠার গৌরব দেখিয়েছেন, যাদের অন্যতম আর্জেন্টাইন এবং বার্সা অধিনায়ক মেসি। ২০১৯ সালে ব্যালন ডি’অর জয়ে সবাইকে পেছনে ফেলে ইতিহাস গড়েছেন লিওনেল মেসি। সর্বোচ্চ ছয়বার ব্যালন ডি’অর জয়ের গর্বিত ফুটবলার একমাত্র তিনিই। আর্জেন্টিনার হয়ে কোপায় ব্যর্থ হয়েছেন, বার্সেলোনার জার্সিতেও জিততে পারেননি ইউরোপের সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতা উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা। তবে মেসির একক নৈপুণ্য ও অর্জন ছিল ঈর্ষণীয়। তারই পুরস্কার হিসেবে ভার্জিল ফন ডাইক ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে পেছনে ফেলে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড হাতে তুলেছেন মর্যাদাপূর্ণ ব্যালন ডি’অর ট্রফি। মাঠের পারফরম্যান্সের মতো মাঠের বাইরেও মেসির জয়জয়কার। ২০১৯ সালে একাধিক পুরস্কার ঘরে তুলেছেন মেসি। ২০১৮-এর জুন থেকে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত অর্থবছরে তিনি ঘরে তুলেছেন ১২৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১ হাজার ৭৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। ব্যালন ডি’অর জয় ও চলতি মৌসুমে দুরন্ত পারফরম্যান্স বলছে, আগামী মৌসুমেও আয়ে বাজিমাত করবেন মেসি।

১৯৯০ সালে ফোর্বসের র‌্যাংকিং চালু হওয়ার পর এই প্রথম শীর্ষ তিনটি স্থান দখল করলেন ফুটবলাররা। র‌্যাংকিং করার সময় ১০০টি ভিন্ন খেলা ও ২৫টি দেশকে বিবেচনায় নেয়া হয়। এতে অ্যাথলিটদের পারিশ্রমিক, প্রাইজমানি ও এনডোর্সমেন্টকে যোগ করে মোট আয় বের করা হয়েছে। কারো পারিশ্রমিক বেশি, কারো আবার এনডোর্সমেন্ট খাত থেকে আয় বেশি। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড বার্সেলোনার কাছ থেকে পারিশ্রমিক হিসেবেই এ বছর আয় করেন ৯২ মিলিয়ন ডলার। এ ছাড়া এনডোর্সমেন্ট খাতে তাকে ৩৫ মিলিয়ন দিয়েছে আর্থিক সহযোগী এডিডাস, মাস্টারকার্ড, পেপসিকো ও অন্যান্য কোম্পানি। গত ১৯ বছরের মধ্যে চতুর্থ অ্যাথলিট হিসেবে আয়ে এক নম্বরে উঠলেন মেসি। পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর চ্যাম্পিয়ন রোনালদো ৩৪ বছর বয়সেও মাঠের ঝলকানিকে মোহিত করেন ফুটবল অনুরাগীদের। গত এক দশকে মাঠের লড়াইয়ে যেমন প্রতিনিয়ত মেসিকে পরাজিত করতে মরিয়া তিনি, তেমনি দুজনের আয়ের লড়াইটাও রোমাঞ্চকর। যদিও ২০১৯ সালটা নিজের করে নিতে পারলেন না রোনালদো। এ বছর ব্যাটনটা মেসিকেই ছেড়ে দিতে হয়েছে। গত এক বছরে ৬৫ মিলিয়ন পারিশ্রমিক ও ৪৪ মিলিয়ন এনডোর্সমেন্ট খাত থেকে আয় করেছেন রোনালদো।

:: তাইসির আদীব নূর

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj