পণের লোভে দেরি করে বউ হারালেন তিনি

সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : সময়ানুবর্তিতার মূল্য হাড়ে হাড়ে টের পেলেন ভারতের উত্তর প্রদেশের বিজনৌরের ধামপুর শহরের এক যুবক। বিয়ে করতে তার পৌঁছানোর কথা ছিল দুপুর বেলা। কিন্তু তিনি পৌঁছেছিলেন রাতে। গিয়ে দেখলেন, তার জন্য অপেক্ষা না করে কনে বিয়ে করছেন এলাকারই এক যুবককে।

পুলিশ জানিয়েছে, মাসখানেক আগে একটি গণবিবাহ অনুষ্ঠানে ওই পাত্রীকে বিয়ে করেছিলেন যুবক। কিন্তু তখন শ^শুর বাড়ি যাননি তিনি। ঠিক হয়েছিল সামাজিক অনুষ্ঠান করে বিয়ে করার পরই শ^শুর বাড়ি যাবেন তিনি। কিন্তু এর মধ্যেই পণ নিয়ে ২ বাড়ির ঝামেলা শুরু হয়। পাত্রপক্ষের দাবি মেটানোর সামর্থ্য মেয়ের বাবার ছিল না। তবুও সামাজিকভাবে আয়োজন করা হয় বিয়ের।

কিন্তু বিয়ের দিন দুপুর ২টার সময় পাত্রের আসার কথা থাকলেও পণ নিয়ে বাকবিতণ্ডায় কেটে যায় বেলা। তারপর যখন বর এলেন, তখন সব শেষ। বরের জন্য অপেক্ষা করতে করতে বিরক্ত হয়ে পাত্রী পাড়ারই এক যুবককে বিয়ে করতে বসে পড়েছেন। রাত দুপুরে বিয়ে করতে এসে বরের তো মাথায় হাত। তবে বিষয়টা এখানেই থেমে যায়নি। বরযাত্রীদের অভিযোগ তারা পৌঁছলে তাদের ঘরে বন্দি করে রাখে কনের বাড়ির লোকজন। গয়নাগাটি কেড়ে নেয়ার অভিযোগও তোলে বরযাত্রীর লোকজন। এরপর খবর যায় পুলিশের কাছে। পুলিশ এসে দুপক্ষের সঙ্গেই আলোচনায় বসে। সেখানে দুপক্ষের সম্মতিতেই মিটমাট করে নেয়া হয়।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj