চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স : দল পরিচিতি

রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : সবার আগে ঢাকা এসে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ইংলিশ হেড কোচ পল অ্যান্ড্রু নিক্সন।

ফ্র্যাঞ্চাইজিবিহীন বিসিবির তত্ত্বাবধানে টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া ৭ দলের অন্যতম বন্দরনগরীর দলটির ক্রিকেটারদের নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন ৪৯ বছর বয়সী সাবেক এই ইংলিশ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

গত শুক্রবার মিরপুর একাডেমি মাঠে পরিচয় পর্বের মধ্যদিয়ে নিজ দলকে নিয়ে কাজ শুরু করেন পল। চলতি আসরে নিক্সনের বোলিং কোচ সহকারী হিসেবে থাকছেন স্বদেশী কবির আলি। দলটির টিম ডিরেক্টর হিসেবে থাকছেন জালাল ইউনুস এবং টিম ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ফাহিম মুনতাসির।

প্রথমদিনের অভিজ্ঞতা নিয়ে কোচ পল নিক্সন বলেন, এটা দারুণ। ছোট এই গ্রুপটার ছেলেদের যে উদ্যম আর স্পৃহা দেখলাম, দুর্দান্ত। আমরা বেশ কয়েকজন ভালো খেলোয়াড় পেয়েছি। যেভাবে দলের ভারসাম্য করা হয়েছে, আমি রোমাঞ্চিত। তাদের ম্যাচ নিয়ে ভালো আইডিয়া আছে, যেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দুর্দান্ত কিছু খেলোয়াড় পেয়েছি, আমি রোমাঞ্চিত।

তবে বিদেশিদের নয়, বাংলাদেশি খেলোয়াড়দেরই ম্যাচ উইনার হিসেবে দেখতে চান নিক্সন। তার ভাষায়, প্রতিটি ম্যাচই চ্যালেঞ্জিং। টপ ক্রিকেটে ব্যবধান খুব কম থাকে। যারা চাপের মুখে নিজেদের খেলাটা খেলতে পারবে, তারাই জিতবে। আমি তো আসার পর শুধু দলের সবার সঙ্গে কথা বললাম। আমাদের স্থানীয় খেলোয়াড়রা যাতে নিজেদের ম্যাচ উইনার হিসেবে বিশ^াস করে সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটা তাদের জন্য দারুণ সুযোগ।

ওদিকে এবারের আসন্ন বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্রথম ম্যাচে অনিশ্চিত মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ভারত সফরের দিবা-রাত্রির টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে চাপ সরানো ৬৯ রানের জুটিতে ৪১ বলে ৩৯ রান করার পরই টান লাগে হ্যামস্ট্রিংয়ে। যার ফলে রিয়াদ ছিটকে যান ওই ম্যাচ থেকে। এরপর বিপিএলে তার দল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ইংলিশ কোচ পল নিক্সনের অধীনে অনুশীলন শুরু হলে সেখানে যোগ দিলেও মাহমুদউল্লাহ ভারী অনুশীলন তথা ব্যাটিং-বোলিং এখনো করতে পারছেন না। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট না সারার কারণে শুধু রানিং সেশনেই নিজের অনুশীলন সীমাবদ্ধ রেখেছেন রিয়াদ। গতকাল সকালেও মিরপুরের একাডেমি মাঠে রানিং করেছেন তিনি।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের নিজস্ব ফিজিও রিয়াদ প্রসঙ্গে নিশ্চিত করে কিছু বলতে রাজি হননি। তিনি অপেক্ষায় আছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ফিজিওর সংকেতের অপেক্ষায়।

যেহেতু মাহমুদউল্লাহ জাতীয় দলের একজন নিয়মিত ক্রিকেটার। তাই তার খেলার জন্য জাতীয় দলের ফিজিওর অনুমতিই শেষ কথা। আর সেটি মিললেই আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে সিলেট থান্ডার্সের বিপক্ষে মাঠে নামতে পারবেন মাহমুদউল্লাহ। অন্যথায় তাকে ছাড়াই টুর্নামেন্ট শুরু করতে হবে চট্টগ্রামকে।

এযাবত অনুষ্ঠিত বিপিএলের আসরগুলোতে চট্টগ্রাম দলটির সাফল্য বলতে দ্বিতীয় আসরে রানার্সআপ হওয়া।

অর্থাৎ বিগত ৬টি আসরের একটিতেও শিরোপার স্বাদ পায়নি চট্টগ্রাম কিংসরা। ২০১২-১৩ মৌসুমে অনুষ্ঠিত ওই আসরে মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্ব¡াধীন ঢাকা গø্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষে ৪৩ রানের ব্যবধানে হেরে শিরোপা বঞ্চিত হয় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের চট্টগ্রাম কিংস।

২০১৩ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাট করা ঢাকার সংগ্রহ ছিল ৯ উইকেটে ১৭২ রান। জবাবে ১৬.৫ ওভারে ১২৯ রানে গুটিয়ে যায় চট্টলার ফ্র্যাঞ্চাইজিটি।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স : মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইমরুল কায়েস, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, এনামুল হক জুনিয়র, মুক্তার আলি, পিনাক ঘোষ, নাসুম আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিকী, জুবায়ের হোসেন লিখন।

বিদেশি : ক্রিস গেইল, কেসরিক উইলিয়ামস, আভিষ্কা ফার্নান্দো, রায়াদ এমরিত, রায়ান বার্ল, ইমাদ ওয়াসিম।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj