ব্যক্তিগত সমস্যা কি অফিসের বসকে জানাবেন

রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯

প্রতিনিয়ত নানা ধরনের সমস্যা ভুগি। হতে পারে সেটা সম্পর্কের টানাপোড়েন, হতে পারে প্রিয় কিছু হারানোর কষ্ট অথবা তার থেকেও গুরুতর কিছু। ব্যক্তিগত সমস্যাকে মাথায় নিয়েই কর্মজীবন চালনা করতে হয়। ব্যক্তিগত সমস্যা কর্মজীবনকে অনেকভাবে প্রভাবিত করে। যখন আপনি আপনার কোনো সমস্যা নিয়ে চিন্তায় থাকবেন তখন কাজে অমনোযোগী হয়ে পড়া বা বেখেয়ালেই কোনো ভুল করে ফেলাটা অস্বাভাবিক নয়।

কর্মক্ষেত্রে কি আপনার কিছু দরকার?

হয়তোবা আপনার কাজের চাপ কমানো দরকার অথবা কাজ করার জন্য একটু আলাদা ব্যক্তিগত জায়গা দরকার যাতে করে আপনি আপনার চারপাশের ভিড় এড়াতে পারেন। কর্মক্ষেত্রে কোনো কিছু দরকার হলে বা ব্যক্তিগত সমস্যার সম্মুখীন হলে অবশ্যই ম্যানেজারকে বলা উচিত। কিন্তু আপনি ঠিক জানেন তো যে বসকে আসলে কী বলতে চাইছেন। তাই কোনো কিছু দরকারি হোক বা অনুরোধ, বলার আগেই ভালো করে চিন্তা করে নিন। আপনি যদি ঠিকভাবে বলতে বা বোঝাতে না পারেন যে আপনার কী দরকার তাহলে আপনি এই বিষয়ে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। আপনি চাইলেই তাকে কাজের বন্ধু মনে করে সবকিছু বলতে পারেন না।

বস কি সাহায্য করতে পারবে?

মনে করুন, আপনি অনেক চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নিলেন যে আপনার ব্যক্তিগত সমস্যার ব্যাপারে বসের সঙ্গে কথা বলবেন। কিন্তু এটা ভেবে দেখেছেন কী যে, আসলেই বস আপনাকে এই ব্যাপারে কোনো ধরনের সাহায্য করতে পারবেন কি না। আপনার বস কী চাইলেই কাজের চাপ কমিয়ে দিতে পারেন বা সাময়িকভাবে আপনার কিছু কাজ অন্য কাউকে দিয়ে দিতে পারেন, তাহলে বসকে আপনার অসুবিধার কথাগুলো বলতে পারেন। তবে এমন কোনো কিছুর পিছনে সময় নষ্ট করবেন না, যেটা আপনি জানেন যে তারা দিতে পারবে না কিন্তু আপনি চাইছেন। যদি আপনার বসের আপনার সমস্যা সমাধান বা সহজ করার ক্ষমতা না থাকে, তাহলে আপনার বসকে সমস্যার কথা বলাটা কার্যকরী হবে না।

ব্যক্তিগত সমস্যা কাজকে প্রভাবিত করছে কি?

কোনো কর্মচারি যদি কাজে অমনোযোগী থাকে বা কর্মক্ষমতায় ব্যাঘাত ঘটে তাহলে একজন ভালো ম্যানেজার অবশ্যই সেই কর্মচারীকে তার সমস্যার ব্যাপারে জানতে চাইবেন। যদি তারা কারণগুলো না জানেন তাহলে ভাববেন হয় আপনি কাজে ফাঁকি দিচ্ছেন অথবা আপনি আপনার কাজের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন বা আপনার উদ্দেশ্য ঠিক নয়। তাদের টিমকে ভালোভাবে পরিচালনা করার জন্য কাজের বাইরে অন্য কি চলছে তা তাদের জেনে রাখা ভালো। তবে সমস্যাগুলো যদি পরোক্ষ বা প্রত্যক্ষ ভাবে আপনার প্রতিদিনের কাজে ব্যাঘাত ঘটায় তাহলে আপনার উচিত হবে তা নিয়ে কথা বলা। এই ধরনের সমস্যা নিয়ে কথা বললে আপনার ম্যানেজার নিজেও চিন্তা করবেন যে, কাজের প্রতি মনোযোগী এবং কাজের কোনো প্রকার ব্যাঘাত চান না। আরো ভালো হয় যদি আপনি এই সমস্যা সমাধানের জন্য কোনো পরিকল্পনা করতে থাকেন। তবে যদি সব সমস্যার মধ্যেও কাজ চালিয়ে যেতে পারেন তবে আপনার লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন।

বস আসলে কী পছন্দ করেন?

কর্মক্ষেত্রে একটি গন্ডির মধ্যে থাকা ভালো। তবে যদি জেনে থাকেন, আপনার বস কর্মচারীদের ব্যক্তিগত সমস্যাকে তার কাজের সঙ্গে তুলনা না করে শুধু তার কাজকে মূল্যায়ন করে তাহলে সমস্যার কথা নির্দ্বিধায় বলতে পারেন। তবে কোনো সমস্যা নিয়ে কথা বলার আগে, যে ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলবেন তার ব্যক্তিগত বিষয়গুলো কিছুটা হলেও জেনে নেয়া ভালো। কারণ যিনি নিজেই অনেক সমস্যার মধ্যে আছেন তিনি নিজে আপনার সমস্যা নিয়ে মাথা ঘামাবেন না। যে কোনো ব্যক্তিগত বিষয় শেয়ার করার আগে নিজে যাচাই করুন আপনি নিজে তাকে কতখানি বিশ্বাস করেন এবং সে আপনাকে কতখানি বিশ্বাস করে, বিশেষ করে আপনার কলিগদের ক্ষেত্রে। অবশ্যই বিশ্বাসী কাউকে নিজের ব্যক্তিগত সমস্যার কথা বলবেন তা না হলে আপনার সমস্যা তার কাছে হাস্যকর মনে হবে।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj