জেনে নিন : সাফল্যের জন্য বিশ্বাস

রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯

কোনো বিষয়ে জানার জন্য বা কোনো কাজ শেখার জন্য, সেই বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ব্যক্তির কাছে প্রশ্ন করাটা অত্যন্ত জরুরি। যেমনটা আমরা শিক্ষকদের নিকট করে থাকি। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে অনেকেই এভাবে প্রশ্ন করতে পারে না। যদি না তারা একে অপরের প্রতি বিশ্বাসযোগ্য হয়। কার্যত সবাই স্বীকার করেন যে, তারা কর্মক্ষেত্রে যে কোনো কাজ, অ্যাসাইনমেন্ট বা প্রকল্প সম্পর্কে প্রশ্ন থাকা সত্ত্বেও প্রশ্ন করতে পারে না। কারণ, তারা প্রশ্ন করতে দ্বিধাবোধ করেন। মূলত এই ভয়গুলো বিশ্বাসের নিম্নস্তরের প্রতিনিধিত্ব করে। দলের সদস্যরা প্রায়শই কোনো প্রশ্ন করতে বা কোনো বিষয়ে স্পষ্টভাবে জানতে চাইতে দ্বিধাগ্রস্থ হোন।

কারণ, তারা মনে করে প্রশ্ন করলে অন্যরকম প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে বা তার নেতিবাচক সম্পর্ক তৈরি হবে। এর মূল কারণ হলো পারস্পরিক বিশ্বাসযোগ্যতার অভাব। যদিও বাস্তবতা হলো নিয়মিত জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে ভাল সিদ্ধান্ত গ্রহণ, বর্ধিত ফলাফল এবং যোগাযোগের মূল্যবান উন্নতি সাধন হয়। বর্তমানে অনলাইন প্রতিষ্ঠানের প্রায়শই একটি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। প্রতিষ্ঠানের খুব বেশি প্রচার ও বিশ্বাসযোগ্যতা না থাকলে, কোনো বিশেষ কারণবশত পণ্য বা সেবা দিতে দেরি হলেই কিছু কাস্টমার প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে আপত্তিকর রিভিউ দিয়ে থাকেন। যেটা একটি বিশ্বাসযোগ্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কখনোই দিতে পারে না। এই বিশ্বাসের উপরই প্রতিষ্ঠানের সুনাম নির্ভর করে। তাই প্রতিষ্ঠানকে সুনামধন্য করে তুলতে হলে আগে বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করা জরুরি। তাছাড়া প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের যোগাযোগ দক্ষতা থাকা চাই অত্যন্ত প্রখর। সহকর্মীদের থেকে শুরু করে কাস্টমার ও প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত অন্য ব্যক্তির সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলতে পারলেই প্রতিষ্ঠানকে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলা।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj