স্মৃতি রোমন্থন

শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯

ক্যামেরার সমানে কোনোভাবেই নগ্ন হতে পারবেন না। সেই কারণে প্লেবয় ম্যাগাজিনে মডেলিংয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পুরনো স্মৃতি আওড়ে এমনই জানান বলিউড অভিনেত্রী নার্গিস ফাকরি। তিনি জানান, ২০০৪ সালে মডেলিং দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন তিনি। আমেরিকার নেক্সট সুপার মডেল হিসেবে তিনি মনোনীত হন মাত্র ১৬ বছর বয়সেই। ওই সময় প্লেবয় ম্যাগাজিনের কলেজ অডিশনের ফটোশুটের জন্য মনোনীত করা হয় তাকে। যেখানে অভিনেত্রীকে বিপুল অঙ্কের পারিশ্রমিকও দেয়া হবে বলে জানানো হয়। প্লেবয় ম্যাগাজিনের ফটোশুটের জন্য ওই সময় তাকে মনোনীত করা হলে, তার এজেন্ট সেই কথা জানান নার্গিসকে। পাশাপাশি বিপুল অঙ্কের পারিশ্রমিকের কথাও জানানো হয় তাকে। কিন্তু ক্যামেরার সামনে কোনোভাবেই নগ্ন হতে পারবেন না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়া হয়। প্লেবয়ের প্রস্তাব তার কাছে আসার পর সবকিছু জেনে তৎক্ষণাৎ তা নস্যাৎ করে দেন বলে জানান নার্গিস। এ বিষয়ে নার্গিস জানান, বলিউডে আসার পর সেখানে কাজ করতে তার কোনো অসুবিধা হয়নি। বলিউডে সেভাবে কোনো যৌন দৃশ্য বা নগ্নতার শর্তে কাজ করানো হয়নি তাকে। ফলে বি টাউনে কাজ করতে তার এখনো পর্যন্ত কোনো অসুবিধা হয়নি বলে জানান নার্গিস। প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে ইমতিয়াজ আলির সিনেমা রকস্টার দিয়ে বলিউডে পা রাখেন নার্গিস ফাকরি। রকস্টারের পর মে তেরা হিরো, মাদ্রাজ ক্যাফের মতো বেশ কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। বি টাউনে অভিনয়ের পাশাপাশি উদয় চোপড়ার সঙ্গে সম্পর্কে জাড়িয়ে পড়েন নার্গিস। এমনকি, চোপড়া ম্যানসনের বাইরে গিয়ে নার্গিসের জন্য একটি পৃথক বাংলোও কেনেন উদয় চোপড়া। বিয়ের পরও তারা সেখানে থাকবেন বলে জানা যায়। কিন্তু এসবের মাঝে আচমকাই রানী মুখোপাধ্যায়ের দেবর উদয় চোপড়ার সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে যায় নার্গিস ফাকরির। উদয়ের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তড়িঘড়ি মুম্বাই ছেড়ে নিউইয়র্কে পাড়ি দেন এই মডেল-অভিনেত্রী। যা নিয়ে কম জল্পনা হয়নি।

:: মেলা ডেস্ক

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj