জিনের বাদশা : প্রতারক চক্রের সাত সদস্য গ্রেপ্তার

শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : কথিত জিনের বাদশার প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে জীবনের একমাত্র সম্বল অবসর ভাতার ২৫ লাখ টাকা খুঁইয়েছেন শাহীনা আক্তার নামে এক নারী। মাত্র ৪ মাসের ব্যবধানে এ টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক চক্র। পরে এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর ছেলে মামলা করলে প্রযুক্তিগত সহায়তা ও গোয়েন্দা তৎপরতা চালিয়ে প্রতারক চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলেন- মো. সুমন ফকির, মো. মুনসুর আহম্মেদ, মো. হাছনাইন ফকির, মো. হাবিবুল্লাহ, মো. লোকমান ভূঁইয়া কাজী, মো. রিয়াজ উদ্দিন ও মো. ফজর আলী জোমাদার।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) অর্গানাইজড ক্রাইমের বিশেষ পুলিশ সুপার মোস্তফা কামাল গতকাল বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান। সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, ঢাকা মহানগর পুলিশের হাতিরঝিল থানায় গত ৩ অক্টোবর একটি মামলা হলে তা আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করে সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টার শাখা। সে সময় অভিযোগের সত্যতা মেলায় তদন্ত অব্যাহত থাকে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত বুধবার এএসপি কাজী আবু সাঈদের নেতৃত্বে একটি দল ভোলা জেলায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা প্রতারণার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকার কথা স্বীকার করেছে। তারা জানায়, সংঘবদ্ধভাবে জিনের বাদশা সেজে সব সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিত, টাকা উত্তোলনের জন্য বিভিন্ন ব্যক্তির এনআইডির মাধ্যমে ভুয়া একাউন্ট খোলাসহ ওই একাউন্টের টাকা বিকাশ এজেন্টের মাধ্যমে উত্তোলন করত। ভুক্তভোগী নারী পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে কর্মরত ছিলেন। এখন তিনি অবসরে আছেন। তাকে ফোনে নানা সমস্যা সমাধানের কথা বলে এ ফাঁদে ফেলে তারা। এ ধরনের প্রতারক চক্রের সদস্যদের কাছ থেকে সতর্ক থাকার পরামর্শও দেন সিআইডির এ কর্মকর্তা।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj