কারাতে

মঙ্গলবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯

কারাতে একটি জাপানি শব্দ। কারা-অর্থ খালি, তে-অর্থ হাতে, কারাতে অর্থ খালি হাতে। খালি হাতে যুদ্ধ করার কলাকৌশলকে কারাতে বা মার্শাল আর্ট বলে। কারাতের উৎপত্তি নিয়ে নানা রকম মতবিরোধ রয়েছে। তবে বলা হয়, ১২০০ সালের দিকে চীনের তিব্বতের বৌদ্ধ ভিক্ষুরা বিভিন্ন অঞ্চলে ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে যেতেন। যাওয়ার পথে গভীর বনে-জঙ্গলে হিংস্র পশুপাখি ও বনদস্যুদের দ্বারা আক্রমণ থেকে বাঁচার জন্য বৌদ্ধ ভিক্ষুরা খুবই গোপনে আত্মরক্ষার জন্য ‘সাওলিন ট্যাম্পল’চর্চা শুরু করেন।

কারাতে একটি আঘাতের কৌশল যেটি ঘুষি, লাথি, হাঁটু এবং কনুইয়ের আঘাত ও মুক্তহস্ত কৌশল যেমন ছুরিহস্ত ব্যবহার করে। কিছু স্টাইলে আঁকড়ে ধরা, আবদ্ধ করা, বাধা, আছাড় এবং অতীব গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে আঘাত শেখানো হয়। কারাতে অনুশীলনকারীকে কারাতেকা বলা হয়। অনেক অনুশীলনকারীদের জন্য কারাতে হলো একটি গভীরতম দার্শনিক অনুশীলন। কারাতে নৈতিক মূলনীতি শেখায় এবং ধফযবৎবহঃং এর আধ্যাত্মিক অর্থ আছে। গিছিন ফুনাকশিকে আধুনিক কারাতের জনক বলা হয়। তার কারাতে-দো আত্মজীবনীতে উল্লেখ করেছেন যে, কারাতে চর্চা স্থানান্তরকরণের প্রকৃতির পরিচিতির মধ্যে আমার জীবনের পথ। বর্তমানে কারাতে অনুশীলন করা হয় শুধুমাত্র স্বু পরিপূর্ণতা, সাংস্কৃতিক,আত্মরক্ষা এবং খেলা হিসেবে। ১৩৭২ সালে চীনের মিং রাজবংশের সঙ্গে রাজা সাতো চুযানের বাণিজ্য সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পরে, চীন থেকে দর্শকরা চীনা মার্শাল আর্ট এর কিছু ধরন রিউকু দ্বীপে পরিচিত করিয়ে দেয়, বিশেষ করে ফুজিয়ান প্রদেশ দ্বারা সূচিত হয়। ১৩৯২ সালের কাছাকাছি সময়ে চীনা পরিবারের বড় গ্রুপ ওকিনাওয়ায় আসে সাংস্কৃতিক বিনিময়ের উদ্দেশ্যে, যেখানে তারা কুমিমুরা কমিউনিটি প্রতিষ্ঠিত করে এবং তাদের জ্ঞান চীনা শিল্প ও বিজ্ঞান ভাগাভাগি করে, যার অন্তর্ভুক্ত চীনা মার্শাল আর্টও। ১৪২৯ সালে রাজা শো হাশি দ্বারা ওকিনাওয়ার রাজনৈতিক কেন্দ্রীয়করণ এবং অস্ত্র নিষিদ্ধ, ১৬০৯ সালে ওকিনাওয়ায় শিমাযু বংশের আক্রমণ ওকিনাওয়ায় নিরস্ত্র যুদ্ধকৌশল উন্নয়নের কারণ।

১৯৬০ এবং ১৯৭০ এর দশকের মার্শাল আর্ট সিনেমাগুলো কারাতের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি করেছে এবং কারাতে শব্দটি জেনেরিক পন্থায় সব ওরিয়েন্টাল মার্শাল আর্টে ব্যবহৃত হয়েছে। বিশ্বজুড়ে কারাতে স্কুল রয়েছে, এখনো কারাতে নিয়ে গভীর গবেষণা চলছে।

:: শাজিয়া তাইয়্যেবা

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj